বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

India-Srilanka: আগুনে বোলিংয়ে শামির ৫ উইকেট, শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে বিশাল জয় ভারতের

Sampurna Chakraborty | ০২ নভেম্বর ২০২৩ ১৫ : ১৯


আজকাল ওয়েবডেস্ক: ভারতের পেস ত্রয়ীতে ছারখার শ্রীলঙ্কা। যশপ্রীত বুমরা, মহম্মদ সিরাজের পর মহম্মদ শামির দুর্ধর্ষ বোলিং। বিশ্বকাপে দ্বিতীয়বার ৫ উইকেট শিকার। ৪৫ উইকেট সংগ্রহ করে ভারতীয়দের মধ্যে একনম্বরে বাংলার পেসার। ৩৫৮ রান তাড়া করতে নেমে ১৯.৪ ওভারে ৫৫ রানে শেষ শ্রীলঙ্কার ইনিংস। ৩০২ রানে বিশাল জয় ভারতের। টানা সাত জয়ে আবার লিগ শীর্ষে ভারত। মাত্র ১৪ রানে ৬ উইকেট হারায় লঙ্কা। এই জায়গা থেকে ম্যাচে ফেরা সম্ভব ছিল না কুশল মেন্ডিসদের। অলরাউন্ড পারফরম্যান্স ভারতের।

প্রথমে ব্যাট হাতে বিরাট-শুভমন-শ্রেয়স ত্রয়ীর দাপট। পরে বল হাতে বুমরা, সিরাজ, শামির আগুনে বোলিং। এশিয়া কাপের পুনরাবৃত্তি। শুরুটা করেন মহম্মদ সিরাজ। কলম্বো থেকে ওয়াংখেড়ে, রেজাল্ট একই। নিজের দ্বিতীয় ওভারে জোড়া উইকেট তুলে নিয়ে শ্রীলঙ্কার টপ অর্ডারে ভাঙন ধরান ভারতীয় পেসার। বাকি কাজটা সারেন শামি। ৫ ওভার বল করে মাত্র ১৮ রান দিয়ে ৫ উইকেট তুলে নেন বাংলার পেসার।

একমাত্র অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ছাড়া কেউ দু"অক্ষরের রানে পৌঁছতে পারেনি। শূন্যতে আউট হন পাঁচজন। তারমধ্যে টপ ফোরের তিনজন। ১২ বছর আগে এই ওয়াংখেড়েতেই বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত-শ্রীলঙ্কা। ১৯৯৬ সালে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিল জয়সূর্য, রণতুঙ্গা, অরবিন্দ ডি সিলভাদের দল। বর্তমান দলের এই হতশ্রী কঙ্কালসার চেহারা দেখলে লজ্জায় মুখ ঢাকবেন লঙ্কার কিংবদন্তিরা।‌ ২০১১ বিশ্বকাপ দলের সঙ্গেও কোনও তুলনা চলে না। নিঃসন্দেহে ভারতের পেস বোলিংয়ের কৃতিত্ব দিতে হবে। বিশেষ করে শামির। তবে শ্রীলঙ্কার ব্যাটারদের মান নিয়েও প্রশ্ন উঠবে। সাঙ্গাকারা, জয়বর্ধনের অবসরের সঙ্গেই শেষ হয়ে গিয়েছে শ্রীলঙ্কার ব্যাটিংয়ের স্বর্ণযুগ। একদিকে আফগানিস্তান, নেদারল্যান্ডসের মতো দলগুলো একের পর এক অঘটন ঘটিয়ে চলেছে। অন্যদিকে আরব সাগরে তলিয়ে গেল বিশ্বকাপজয়ী শ্রীলঙ্কা। 

শানাকা, পথিরানাদের অনুপস্থিতিতে বোলিং কিছুটা কমজোরী।‌ ব্যাটিংয়েও একমাত্র কুশল মেন্ডিস ছাড়া নির্ভরযোগ্য কেউ নেই। নিশঙ্কা, আসালঙ্কাদের ধারাবাহিকতার অভাব। এই অবস্থায় ওয়াংখেড়ের মতো ব্যাটিং ট্র্যাকে টসে জিতে কুশল মেন্ডিস কেন ভারতকে ব্যাট করতে পাঠান বোধগম্য হল না। অধিনায়কত্ব থেকে শুরু করে বোলিং, ফিল্ডিং, ব্যাটিং, সবই নিম্নমানের। টসে হারার পর রোহিত জানান, তিনিও প্রথমে ব্যাট করতেই চেয়েছিলেন। পাশাপাশি জানান, নৈশালোকের আলোয় পেসাররা সুবিধা পাবে। হলও তাই। তিনজন জোরে বোলার মিলে ৯ উইকেট তুলে নেয়। অসহায় আত্মসমর্পণ করে লঙ্কার ব্যাটাররা।‌ প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেটের বিনিময়ে ৩৫৭ রান তোলে ভারত।

বিরাট কোহলি (৮৮), শুভমন গিল (৯২), শ্রেয়স আইয়ারের (৮২) ব্যাটে ভর করে বিশাল রান তোলে টিম ইন্ডিয়া। এদিন ছন্দে থাকা রোহিত ব্যর্থ। প্রথম বলে চার মেরেই দ্বিতীয় বলে বোল্ড হন। ৫ উইকেট নেন মাদুশঙ্কা। লঙ্কার বাকি বোলাররা ডাহা ব্যর্থ। শুধু ওয়াংখেড়েতে অধরা থাকল একদিনের ক্রিকেটে কোহলির ৪৯তম শতরান। যা খোদ শচীন তেন্ডুলকারের সামনে করার হাতছানি ছিল। তবে হতাশ হতে হয়নি দর্শকদের। সেঞ্চুরি হাতছাড়া হলেও মন ভরিয়ে দেন শুভমন এবং শ্রেয়স।‌ ১২ বছর আগে এই মাঠেই বিশ্বকাপ জিতেছে ভারত। সম্ভবত এই ওয়াংখেড়েতেই সেমিফাইনাল খেলবে টিম ইন্ডিয়া। তার আগে এই বৃহৎ জয় রোহিতদের যে আরও ভাল জায়গায় নিয়ে যাবে সেটা বলাই বাহুল্য। 



বিশেষ খবর

নানান খবর

Charlie Chaplin Birthday 2024 #charliechaplin #birthday #BirthAnniversary #aajkaalonline

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া