বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

মন্ত্রিত্বের টোপ দিয়ে বিধায়কের থেকে টাকা চাওয়ার অভিযোগ, গ্রেপ্তার ১ #দক্ষিণবঙ্গ

Pallabi Ghosh | ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৮ : ৩২


আজকাল ওয়েবডেস্ক: রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে পরামর্শ প্রদানকারী সংস্থা আইপ্যাক-এর নাম করে মুর্শিদাবাদের ভরতপুরের তৃণমূল বিধায়ক হুমায়ুন কবীরের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা চাওয়ার অভিযোগে শক্তিপুর থানার পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হলেন এক ব্যক্তি। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে ধৃত ব্যক্তির নাম রঞ্জন সরকার। তাঁর বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনার মধ্যমগ্রাম এলাকার পূর্ব দাস পাড়াতে। শনিবার সকালে পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে -ধৃত ওই যুবক একটি পোর্টালে সাংবাদিকতার পেশার সাথে জড়িত।
হুমায়ুন কবীর বলেন, "প্রায় ১৫ মাস আগে রঞ্জন সরকার প্রথম আমাকে ফোন করেন এবং নিজেকে রাজ্যের কয়েকজন মন্ত্রী এবং আইপ্যাক-এর শীর্ষ কয়েকজন কর্তার ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচয় দেন। সেই সময় ওই ব্যক্তি আমাকে রাজ্য মন্ত্রিসভার সদস্য করে দেবেন এই আশ্বাস দিয়ে আমার কাছ থেকে বারবার টাকা চান।"
সূত্রের খবর, এরপর রঞ্জন সরকার বিপদে পড়েছেন এমন কথা বলে হুমায়ুন কবীরের কাছ থেকে কিছু টাকা চান এবং বিধায়ক তাঁকে টাকা দিয়ে সাহায্য করেন। কিন্তু সেখানেও না থেমে রঞ্জন ফের হুমায়ুনকে মন্ত্রী করার প্রলোভন দেখিয়ে টাকার দাবি করতে থাকেন। হুমায়ুন বলেন, "গত ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে আবার ওই ব্যক্তি আমাকে আইপ্যাক-এর নাম করে বারবার হোয়াটসঅ্যাপে এবং আমার ব্যক্তিগত নম্বরে ফোন করে বিরক্ত করতে থাকেন এবং টাকা চাইতে থাকেন। আমি ওই ব্যক্তিকে ফোন করতে বারণ করলেও বারবার নম্বর বদল করে আমাকে ফোন করতে থাকেন।"
হুমায়ুন কবীর বলেন, "এরপরই আমি গোটা ঘটনাটি আইপ্যাক-এর কয়েকজন শীর্ষ আধিকারিকের নজরে আনি। তখন আমাকে জানানো হয় ওই নামে আইপ্যাক সংস্থাতে কেউ কাজ করে না এবং মন্ত্রিত্ব দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে টাকা চাওয়ার বিষয়টি পুলিশকে জানানোর পরামর্শ দেওয়া হয়।" শুক্রবার রাতে হুমায়ুন কবীর তাঁর নিজের বাড়ির কাছে শক্তিপুর থানাতে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
মুর্শিদাবাদ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার্স) মজিদ ইকবাল খান বলেন, "বিধায়কের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে আজ আমরা ওই ব্যক্তিকে মধ্যমগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করেছি।" আদালত ধৃত রঞ্জন সরকারের তিন দিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন মঞ্জুর করেছে।
হুমায়ুন বলেন, "আমি পরিষ্কার রঞ্জনকে জানিয়ে দিয়েছিলাম আমাদের দলে কে মন্ত্রী হবেন বা হবেন না সেটা ঠিক করেন আমাদের নেত্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বাইরের কেউ নয়। আমাকে এভাবে বিরক্ত করবেন না।"



বিশেষ খবর

নানান খবর

WORLD BOOK and COPYRIGHT DAY #aajkaalonline #WorldBookandCopyrightDay

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া