SNU

রবিবার ২৩ জুন ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

ADHIR: জয়ের 'ডবল হ্যাটট্রিক' করার লক্ষ্য নিয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন অধীর

Sumit | ২৪ এপ্রিল ২০২৪ ১৬ : ০২


আজকাল ওয়েবডেস্ক: লোকসভা নির্বাচনে পরপর ছ"বার জিতে জয়ের "ডবল হ্যাটট্রিক" করার লক্ষ্য নিয়ে বুধবার দুপুরে বহরমপুরে জেলা প্রশাসনিক ভবনে গিয়ে মনোয়নপত্র জমা দিলেন বিদায়ী লোকসভার কংগ্রেস দলনেতা তথা বহরমপুর কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী অধীর চৌধুরী। আজ মনোনয়ন পত্র জমা দিতে যাওয়ার সময় অসংখ্য কংগ্রেস-বাম সমর্থক তাঁর সঙ্গে মিছিল করে জেলা প্রশাসনিক ভবন পর্যন্ত যান।
১৯৯৯ অধীর চৌধুরী প্রথমবার কংগ্রেসের প্রতীকে বহরমপুর কেন্দ্র থেকে আরএসপি প্রার্থী প্রমথেশ মুখার্জিকে হারিয়ে জয়ী হন। তারপর থেকে এখনও পর্যন্ত অধীর চৌধুরীর জয়ের অশ্বমেধের ঘোড়া বহরমপুর কেন্দ্রে থামানো যায়নি।
তবে এই প্রথমবার বামেদের সঙ্গে জোট করে বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে লড়তে নেমেছেন অধীর চৌধুরী। বহরমপুর কেন্দ্র থেকে ইতিমধ্যে মনোনয়ন পত্র জমা করেছেন বিজেপি প্রার্থী ডাঃ নির্মল সাহা এবং তৃণমূলের ইউসুফ পাঠান।
তবে অনেকেই মনে করছেন এবারের লড়াই অধীর চৌধুরীর কাছে অন্য নির্বাচনগুলির তুলনায় অনেক কঠিন হতে চলেছে। গত বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলের নিরিখে বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তৰ্গত ৭ টি বিধানসভা এলাকাতেই পিছিয়ে রয়েছে কংগ্রেস।
অন্যদিকে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ অধ্যুষিত মুর্শিদাবাদ জেলাতে এই প্রথমবার তৃণমূল কংগ্রেস কোনও সংখ্যালঘু মুখকে অধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে প্রার্থী করেছে। তাই অধীর নিজেও জানেন তাঁর এবারের লড়াই গত পাঁচবারের থেকে আলাদা। বিরোধী দলের রাজনীতিকরা ইতিমধ্যেই বলা শুরু করেছেন-লড়াই কঠিন বুঝে নির্বাচনী ময়দানে মেজাজ হারাচ্ছেন অধীর চৌধুরী। ইতিমধ্যে কমপক্ষে দু"বার অধীরের বিরুদ্ধে বিরোধী রাজনৈতিক দলের সমর্থকদের "ধাক্কাধাক্কি" করার অভিযোগ উঠেছে। সেই মামলাতে ইতিমধ্যে বহরমপুর থানার পুলিশ তাঁকে ডেকে পাঠিয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করেছে।
গত সোমবার মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের বাম প্রার্থী মহম্মদ সেলিম যখন প্রশাসনিক ভবনে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে যান সেই সময় "বাম-কংগ্রেস" জোটের প্রতি নিজের আস্থা দেখানোর জন্য অধীর সিপিএম-এর উত্তরীয় পরে সেলিমের পাশে বহরমপুরের রাজপথ ধরে হেঁটেছিলেন। তবে আজ যখন অধীর চৌধুরী মনোনয়ন পত্র জমা করতে যান সেই সময় সেলিমকে তাঁর পাশে দেখা যায়নি। যদিও সিপিএম-এর পতাকা হাতে নিয়ে অসংখ্য বাম কর্মী-সমর্থক কংগ্রেস কর্মীদের সাথে মিছিলে হাঁটেন। তবে অধীরের মনোনয়ন পর্বে হাজির ছিলেন ডিওয়াইএফআই এর রাজ্য সম্পাদিকা মীনাক্ষী মুখার্জী।
সাদা জামা, কালো প্যান্ট এবং মাথায় "হ্যাট" পরে অধীর চৌধুরীকে দেখার জন্য রাস্তার দুপাশে আজ অসংখ্য মানুষ জড়ো হয়েছিলেন। জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্রের হাতে মনোনয়নপত্র তুলে দেন অধীর চৌধুরী। অধীর বলেন, "এই শহরের প্রত্যেক মানুষের সঙ্গে আমার আত্মিক সম্পর্ক রয়েছে। তাই আমি নিশ্চিত আবারও এই কেন্দ্র থেকে আমি জিতব। " সেলিমের অনুপস্থিতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন ,"আমিই মহম্মদ সেলিমকে আসতে বারণ করেছি। নিজের প্রচারে থাকতে বলেছিলাম। বাম নেত্রী মীনাক্ষী আমার সঙ্গে ছিল। এই সব নিয়ে আলোচনার কোনও অর্থ হয় না। বাম এবং কংগ্রেস জোট করেই লড়ছে। "  




বিশেষ খবর

নানান খবর

Advertise with us


রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া



SNU