শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Abhishek Banerjee: পার্থ-জ্যোতিপ্রিয়কে রেয়াত করেনি তৃণমূল, শাহজাহান কে? প্রশ্ন অভিষেকের#দক্ষিণবঙ্গ

Riya Patra | ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৯ : ০৭



আজকাল ওয়েবডেস্ক: সন্দেশখালি কাণ্ডে উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি। গ্রামবাসীরা গত কয়েকদিনে লাগাতার ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে। কিন্তু সেই শাহজাহান এখনও অধরা। বিরোধীরা সুর চড়াচ্ছে, কেউ কেউ বলছেন রাজ্যের শাসক দল আড়াল করছে শাহজাহানকে। বুধবার তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক ব্যানার্জি বললেন, পার্থ চ্যাটার্জি, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকে রেয়াত করেনি তৃণমূল, শেখ শাহজাহান কে? উল্টে অভিষেক বললেন এবং বোঝালেন কোন উপায়ে শাহজাহান ইস্যুতে আদালত হাত বেঁধে রেখেছে রাজ্য পুলিশের, প্রশাসনের। বললেন যদি এই বিষয়ে প্রশ্ন করতেই হয়, তাহলে করা হোক আদালতের কাছে। 

তৃণমূল সাংসদ বলেন, "হাইকোর্ট যদি রাজ্য প্রশাসনের হাত বেঁধে দেয়, তাহলে গ্রেপ্তার করবেন কীভাবে?" গত কয়েকদিনে সন্দেশখালি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে একের পর এক। এদিন অভিষেক ৫জানুয়ারির ঘটনা উল্লেখ করে বলেন, ৫ জানুয়ারি যে ঘটনা ঘটে, ইডি আধিকারিকদের ওপর হামলা চালানো হয় বলে যে অভিযোগ হয়েছিল এবং তাঁরাই এফআইআর করেছিলেন, তাতে কলকাতা হাইকোর্টের মাননীয় বিচারপতি জয় সেনগুপ্তর বেঞ্চ অর্ডার দিয়েছিল, এসআইটি তৈরি হবে। তাতে থাকবেন রাজ্য পুলিশের কর্তা এবং এক সিবিআই প্রতিনিধি, এসআইটি তদন্ত করবে সবদেশখালির ঘটনা। ১০-১২ দিন পর ইডি আবেদন করে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চে অ্যাপিল করে স্টে চায়। তা মঞ্জুর হয়। অভিষেক বলেন, "স্টে অর্থাৎ তদন্ত হবে না, কাউকে গ্রেপ্তার করা যাবে না, কাউকে নোটিশ পাঠিয়ে ডাকা যাবে না।" বলেন, এটা হাইকোর্টের বিচারপতি করেছেন এটি, মমতা ব্যানার্জি নয়। এর শুনানি রয়েছে আগামী ৬ মার্চ। অভিষেক এদিন সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পাল্টা প্রশ্ন করেন, "বিচারব্যবস্থা রাজ্য পুলিশ প্রশাসনের হাত পা বেঁধে দিল পুলিশ গ্রেপ্তার করবে কীভাবে?" রাজ্য পুলিশ এবং ইডি দুপক্ষের এফআইআর স্টে হয়েছে বলে জানান অভিষেক।

 গত কয়কেদিনে বিরোধীরা শাহজাহান ইস্যুতে একাধিকবার সুর চড়িয়েছে, অভিযোগ উঠেছে শাসক দল আড়াল করছে তাকে। এদিন অভিষেক বলেন, "তৃণমূল কংগ্রেস এমন একটা দল, যে পার্থ চ্যাটার্জি, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে রেয়াত করে নি, শেখ শাহজাহান কে?" বলেন, যত বড় নেতাই হোক না কেন, মানুষের সঙ্গে অন্যায় হলে, রেয়াত নয় কাউকে। তৃণমূল কংগ্রেস সরকার এবং রাজ্য পুলিশ প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা নেবে। দিনের পর দিনের অন্যায়ের পরও, বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতারা কেন মুখ খোলেননি, সেই প্রশ্নও করেন অভিষেক। অভিযোগের ভিত্তিতে উত্তম সর্দার, শিবু হাজরার গ্রেপ্তারির প্রসঙ্গও উল্লেখ করেন। তুলে আনেন সুদীপ্ত সেনের গ্রেপ্তারির প্রসঙ্গ। সাফ জানান, শেখ শাহজাহানকে যদি কেউ আড়াল করে সেটা বিচারব্যবস্থা, তৃণমূল কংগ্রেস নয়।

 দিল্লি থেকে বসে কয়েকজন বাংলায়। অশান্তির পরিস্থিতি তৈরি করছেন বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি। বলেন, কেউ বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতি তৈরি করে, বিভাজন তৈরি করে রাজনৈতিক ফায়দা লুঠবে, মানুষ তার জবাব দেবে। পরিস্থিতি ঠিক হলে রাজ্যের শাসক দল সন্দেশখালিতে সভা করবে বলে জানান অভিষেক।



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর



রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া