মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Rohit Sharma: চাপ নিয়েই সেরাটা দেওয়ার অঙ্গীকার রোহিতের

Sampurna Chakraborty | ১৪ নভেম্বর ২০২৩ ১৫ : ২৩


সম্পূর্ণা চক্রবর্তী: চার বছর আগে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরেই বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে গিয়েছিল ভারত। যতই অস্বীকার করুন, সেই স্মৃতি যেন এখনও টাটকা। সেই জন্যই হয়তো বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের আগের দিন গুরুগম্ভীর রোহিত শর্মা। তিনি কি তাহলে চাপে আছেন? কোনওরকম রাখঢাক না করেই এককথায় মেনে নিলেন। রোহিত বলেন, "প্রথম ম্যাচ থেকে শেষ ম্যাচ, বিশ্বকাপের প্রত্যেক ম্যাচে চাপ থাকবেই। এটা এড়ানো যাবে না। সব বিশ্বকাপেই চাপ থাকে। এমনকী ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে জন্মালে সব ম্যাচেই চাপ থাকে। সব ফরম্যাটেই।‌ সবাই জয় আশা করে। তাই চাপ নিয়েই খেলতে হয়। ভারতের জার্সিতে যে প্রথম ম্যাচ খেলছে সেও যেমন চাপে থাকে, তেমনই যে ২৫০ ম্যাচ খেলছে তাঁরও একই চাপ।" দুই শিবিরের দুই চিত্র। দুপুরে কেন উইলিয়ামসনকে ফুরফুরে মেজাজে দেখায়। উল্টে সাংবাদিকদের সঙ্গে মশকরা করেন। সেখানে ভারত অধিনায়ক বেশ থমথমে। তবে মুখে বলছেন, অতীত নিয়ে একেবারেই ভাবিত নয় তাঁর দল। রেকর্ডের তোয়াক্কাও করেন না। এই প্রসঙ্গে রোহিত বলেন, "ভারতের প্রথম বিশ্বকাপ জেতার সময় এই দলের অধিকাংশ ক্রিকেটারের জন্ম হয়নি। ২০১১ সালে দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জয়ের সময় দলের অধিকাংশ ক্রিকেট খেলাই শুরু করেনি। তাই এরা শুধুমাত্র বর্তমানে ফোকাস করে। ভবিষ্যতে কতটা উন্নতি করা যায় সেদিকে ফোকাস করে। আগের রেজাল্ট আমাদের কাছে অতীত। আমাদের একমাত্র ফোকাস সেমিফাইনাল। দলের সবাই শুধু একটাই ম্যাচ নিয়ে ভাবছে।" 

রোহিত শর্মার দলের সবচেয়ে পজিটিভ পয়েন্ট ড্রেসিংরুম। ২২ গজের বাইরেও সকলের দারুণ সম্পর্ক। দলের মধ্যে কোনও রাজনীতি নেই। এটাই ভারতের সাফল্যের অন্যতম কারণ। হার-জিত নির্বিশেষে অন্দরমহলে এই পরিবেশ রাখার চেষ্টা করেন ভারত অধিনায়ক। রোহিত বলেন, "চেষ্টা করি যাতে রেজাল্টের ওপর দলের অন্দরমহলের পরিবেশ নির্ভর না করে। এটা একার চেষ্টায় হয় না, সকলের সাহায্য লাগে। ধর্মশালায় ম্যাচের পর ৫-৬ দিনের বিরতি ছিল। সেখানে ক্রিকেটের বাইরে নানান কার্যকলাপ রাখা হয়েছিল। তারমধ্যে ছিল একটি ফ্যাশন শো ও। প্লেয়ারদের রিল্যাক্সড রাখার জন্যই এগুলো করা হয়। যাতে মাঠে নেমে ওরা সেরাটা দিতে পারে।" পাঁচ বোলার নিয়ে খেলেই জিতছে ভারত। এখনও পর্যন্ত হার্দিক পাণ্ডিয়ার অভাব বোধ হয়নি। কিন্তু নেদারল্যান্ডের বিরুদ্ধে আগের ম্যাচে বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, সূর্যকুমার যাদবকেও বল করতে দেখা গিয়েছে। প্রয়োজন পড়লে যাতে তাঁরা হাত ঘোরাতে পারে, সেই মহড়া সেরে রাখা হয়েছে। তবে কিউয়িদের বিরুদ্ধে এদের প্রয়োজন হোক, চাইবেন না রোহিত। এই প্রসঙ্গে বলেন, "হার্দিক চোট পাওয়ার পর আমাদের পরিকল্পনায় বদল আনতে হয়েছে। আমি এদের সবাইকে দিয়েই বল করাতে চাইছিলাম। কিন্তু সুযোগ পাচ্ছিলাম না। আগের ম্যাচে পেলাম। তবে আশা করব যাতে কাল প্রয়োজন না পড়ে।" 

ছোট থেকেই ওয়াংখেড়েতে খেলছেন। আইপিএলেও মুম্বইয়ের নেতা। তাঁর ঘরের মাঠে ফাইনাল খেলতে নামবেন। স্বপ্নের মুহূর্ত। কিন্তু নিজের এই যাত্রা নিয়ে ভাবার সময় নেই। একমাত্র ফোকাস দলে। টিমগেমে। হাই-প্রোফাইল ফাইনালে ভাল ক্রিকেট খেলাই লক্ষ্য। দলে কোনও বদল আনতে চান না। একই কম্বিনেশন ধরে রাখার কথা জানান হিটম্যান। তবে নিউজিল্যান্ডকে যথেষ্ট সমীহ করছেন। রোহিত জানান, "নিউজিল্যান্ড সবচেয়ে শৃঙ্খলাপরায়ণ দল। খুব বুদ্ধিদীপ্ত ক্রিকেট খেলে। ২০১৫ সাল থেকে সব আইসিসি টুর্নামেন্টে ভাল খেলছে। বিপক্ষের মানসিকতা বোঝে এবং সেটা কাজে লাগাতে জানে। আমাদের দলের সকলের ভূমিকা স্পষ্ট। এবার আমাদের কিছুটা ভাগ্যের সাহায্য দরকার। শুনেছি ভাগ্য সাহসীদের সঙ্গে থাকে।" অনেকেই এই দলকে ভারতের সেরা দলের তকমা দিচ্ছেন। কিন্তু তেমন কোনও সার্টিফিকেট দিলেন না রোহিত। জানান, ২০১৫ এবং ২০১৯ সালে দলের সদস্য থাকলেও থিঙ্কট্যাংকের অঙ্গ ছিলেন না। তাই তাঁর পক্ষে সেরা দল বেছে নেওয়া সম্ভব নয়। ওয়াংখেড়ে‌র উইকেট ব্যাটিং সহায়ক। প্রথমে ব্যাট করা দলের অ্যাডভান্টেজ থাকে। সেক্ষেত্রে টস বড় ফ্যাক্টর হতে পারে। অধিকাংশ ক্রিকেট পণ্ডিতের তেমনই ধারণা। কিন্তু সম্পূর্ণ ভিন্ন মত রোহিতের। ভারতের নেতা সরাসরি জানিয়ে দিলেন, টস কোনও ফ্যাক্টর নয়। 



বিশেষ খবর

নানান খবর

Earth day 2024 #Aajkaal #EarthDay2024 #EarthDay #aajkaalonline

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া