শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Abhishek Banerjee: আগামীর ভোট কর্মের ভিত্তিতে, সুর বেঁধে দিলেন অভিষেক#দক্ষিণবঙ্গ

Riya Patra | ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৭ : ৫৬


আজকাল ওয়েবডেস্ক: সামনেই লোকসভার নির্বাচন। ঠিক তার আগেই মহেশতলা, বজবজ এলাকার মানুষদের জন্য বিপুল ব্যয়ের রাস্তা, জল প্রকল্পের উদ্বোধন করেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জি। ওয়াকিবহাল মহলের মতে ভোটের আগে উন্নয়ন মূলক প্রকল্পই বাংলার শাসক দলের তুরুপের তাস। এই কথার সুর অভিষেকের গলাতেও। সাফ জানালেন, আগামী দিনে ভোট হবে কর্মের ভিত্তিতেই। রবিবার বজবজ ট্রাঙ্ক রোড এবং মহেশতলা, বজবজ ও পুজালি পৌরসভা এলাকায় আন্তঃপৌর জল সরবরাহ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন অভিষেক।  তিনি জানান, এলাকার মানুষের জন্য সাময়িক রাস্তা সারাইয়ের পর তিনি পাকাপাকি সুরাহা করার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে জানানোর সঙ্গে সঙ্গেই তিনি তৎপর হন। অভিষেক বলেন, নির্বাচনের আগেই এই কাজ সম্পন লক্ষ্য ছিল। তিনি "কথা দিলে কথা রাখেন"। ৫১ কোটি ২১ লক্ষ ৫৮ হাজার ব্যয়ে এই রাস্তা তৈরি। তৃণমূল সাংসদ বলেন, দেশের অন্যান্য রাজ্যে, ব্রিজ হলে রাস্তা খারাপ থাকে, রাস্তা ভাল, বড় থাকলে ব্রিজের প্রয়োজন নেই ভাবে। কিন্তু বাংলার শাসক দল দুটোই তৈরি করছে মানুষের চাহিদাকে মাথায় রেখে। অভিষেক বলেন, "হয়েছে ব্রিজ, হয়েছে রাস্তা, জনগন বলছে মা মাটি মানুষেই আস্থা।" বাম জামানাকে কটাক্ষ করে তৃণমূলের সাংসদ বলেন, বাম সরকার শিলান্যাস করেই ক্ষান্ত হত, কাজ সম্পূর্ন হত না। কিন্তু তৃণমূল সরকার কথা দিয়েই কথা রেখেছে, সময় নেয়নি ১ বছরও। ৫০০ দিনের টাইমলাইন নিলেও, প্রায় তার অর্ধেক দিনেই শেষ হয়েছে এই কাজ। এদিন পানীয় জলের সরবরাহ প্রকল্পের উদ্বোধনে অভিষেক বলেন, কলকাতার মত জলের সুবিধা পাওয়ার অধিকার মহেশতলার মানুষেরও আছে। একই সঙ্গে জানান, ২০২৪ এর কথা মাথায় রেখে নয়, এই প্রকল্প তৈরি হয়েছে এমন ভাবে, যাতে ২০৪০ পর্যন্ত জলের অসুবিধা না হয় এলাকাবাসীদের। 

এদিন ফের কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন অভিষেক। কেন্দ্র সরকারকে কটাক্ষ করেন এদিন বলেন, কেন্দ্র সরকার বাংলার বকেয়া টাকা, বাংলার মানুষের টাকা আটকে রেখেছে গায়ে জোরে, কারণ তারা বাংলায় হেরেছে। কেন্দ্রের সাহায্য ছাড়াই রাজ্য সরকার মানুষের পাশ দাঁড়াচ্ছে, খতিয়ান দিয়ে সেকথাও এদিন ফের তুলে ধরেন অভিষেক। 

এবারের বাজেটে রাজ্য সরকার লক্ষ্মীর ভান্ডার সহ একাধিক প্রকল্পের ভাতার পরিমাণ বাড়িয়েছে। সেই প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, জটিল পরিস্থিতির মাঝে দাঁড়িয়ে কীভাবে মমতা ব্যানার্জি, রাজ্য সরকার তাঁদের পাশে দাঁড়িয়ে রাজ্যের কোষাগার থেকে তাঁদের হাতে টাকা তুলে দিচ্ছেন, বাড়ছে ভাতার পরিমাণ সেই খতিয়ান দেন। বলেন, এতে কেন্দ্রের কোনও সাহায্য নেই। জানান, মানুষের চাহিদাকে অগ্রাধিকার দিয়ে বাংলার শাসক দল, ডায়মন্ড হারবার লোকসভায় গত ১০ বছরে যে বিপুল অঙ্কের টাকার কাজ করেছে। আগামী দিনে উন্নয়ন আরও জোরদার হবে বলেও আশাবাদী অভিষেক। মোদিকে কটাক্ষ করে অভিষেক বলেন, "প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ২০২২ এর মধ্যে ভারতের প্রত্যেক নাগরিকের ছাদের ব্যবস্থা করব। মানুষকে ভাঁওতা দিয়েছে, কাজ করেনি। ধর্মের নামে উস্কানি দিয়ে নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করেছিল।" তদন্তকারী সংস্থার সঙ্গেই, বিচারব্যবস্থার একাংশও কেন্দ্রের পক্ষে দাঁড়িয়ে বলে অভিযোগ করেন অভিষেক। বলেন, বলতে দ্বিধা নেই, ১০০ দিনের কাজ নিয়ে বিচার ব্যবস্থার কাছে দ্বারস্থ হয়েছি, কোনও সুরাহা হয়নি। বক্তব্যের শেষে অভিষেক বলেন, গণতন্ত্রে শেষ কথা সাধারণ মানুষ, আর সেই মানুষ আছে তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গেই।



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর



রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া