রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Kolkata Book Fair: বইমেলায় বিক্রি বাড়ছে, বই পড়া বেড়েছে কি?

Riya Patra | ২২ জানুয়ারী ২০২৪ ১৩ : ৫৯


রিয়া পাত্র

পঞ্চম দিনে বই পার্বণ। যত দিন এগোচ্ছে, বাড়ছে ভিড়। মেলা প্রাঙ্গণে মেলা মানুষ, স্টলের সামনে লম্বা লাইন, বিল কাটতে গিয়ে মুখ তোলার সময় পাচ্ছেন না বিক্রেতারা। তবে তার মাঝেও কিছু প্রশ্ন খচখচ করছে। যেমন এই যে এত বিক্রি বইমেলায়, তাতে কি আদৌ বাড়ছে বই পড়া? আর এই প্রশ্নকে সামনে রেখেই আলোচনা হল আজকাল-এর "সাহিত্য আলোচনা" সভায়।  সোমবার এসবিআই অডিটোরিয়ামে "সাহিত্য আলোচনা"য় উপস্থিত ছিলেন সুবোধ সরকার, প্রচেত গুপ্ত, চন্দ্রিল ভট্টাচার্য, ঋদ্ধি সেন, দেবজ্যোতি মিশ্র। অনুষ্ঠানের মুখবন্ধ করেন শ্যামলী আচার্য। কবিতা পাঠ করে শোনান অনিন্দ্য রায়। সমগ্র অনুষ্ঠানটিতে সূত্রধরের কাজ করে আলোচনা এগিয়ে নিয়ে যান সঞ্চারী মুখোপাধ্যায়। বিশিষ্ট কবি সুবোধ সরকার মনে করেন, সবসময়ই যত বই কেনা হয়, তত বই পড়া হয় না। তাঁর মতে, "এমন অনেক মানুষ আছেন, যাঁরা নানাবিধ কঠিন, সহজ বই কিনে রাখেন, স্রেফ রাখাই থাকে বইয়ের তাকে।" তাঁর মতে, পাঠকও এই সময় দ্বিধা বিভক্ত, এক পক্ষ ঝুঁকেছে ই-বুকের দিকে, এক পক্ষ এখনও পাতা উল্টে বই পড়েন। তবে তাঁর এই বক্তব্য আবার মানতে নারাজ এই মুহূর্তের জনপ্রিয় সাহিত্যিক প্রচেত গুপ্ত। তাঁর মতে, "আমি পাঠককে এত কম ভাবি না বা ছোট ভাবি না যে কেউ বই কিনে নিয়ে গিয়ে বাড়িতে সাজিয়ে রাখবে।" তিনি মনে করেন এবং মনে করতে চান পাঠক মূলত পড়ার জন্যই কেনেন। "বিদেশের কথা বলতে পারব না। তবে আমাদের এখানে এখনও সেই "ফ্যাশন" আসেনি যে বাড়িতে বই সাজিয়ে রাখব।" 
শিল্পী, সঙ্গীতকার দেবজ্যোতি মিশ্রর গলাতেও প্রচেত গুপ্তর মন্তব্যের সমর্থন শোনা গেল। তাঁর মতে, " আমার মনে হয় না যে বই পড়া কমেছে। বই পড়ার বিভিন্ন ভাগ হয়েছে। কিন্তু পড়া কমেছে, এটা আমার ভাবতে ইচ্ছে করে না, আমি ভাববও না।" চন্দ্রিল ভট্টাচার্যের কথায় আবার ফিরে আসে সুবোধ সরকারের ভাবনা। তাঁর কথায়, "পরিসংখ্যান বলছে বই বিক্রি হচ্ছে। পড়ছে নিশ্চয়, নইলে কিনছে কেন? কিন্তু পড়ছে কিনা সেটার তো পরিসংখ্যান হয়নি।" তাঁর মতে, যাঁরা ভাবছেন "মানুষ বই পড়ছেন বলে তাঁরা বিশ্বাস করেন, তাঁরা মানুষের ওপর বিশ্বাস হারানো পাপ ধারণায় বিশ্বাসী হয়ে বলছেন।" সুবোধ সরকারের কথার সমর্থনে তিনি বলেন, "চিরকালই মানুষ বই কিনেছেন অনেক, পড়েছেন কম।" একই সঙ্গে চন্দ্রিল তাঁর বক্তব্যে তুলে আনেন আরও এক প্রসঙ্গ। বারবার যে প্রশ্ন উঠে আসে ইদানিং, তরুণ প্রজন্ম আগের মতো বই পড়ে না। তাঁর প্রশ্ন, আগে মানুষ বই পড়তেন, কিন্তু সমীক্ষা করে কি দেখা হচ্ছে কী বই পড়তেন? 
ঋদ্ধির কাছে সঞ্চারী প্রশ্ন রাখেন, এত লোক যে বই মেলায় আসেন, তরুণ প্রজন্মের বইমেলা আদতে কেমন? আগের প্রজন্মের মতোই কি এই প্রজন্মও বই এবং বইমেলা নিয়ে সমান আগ্রহী? অভিনেতা ঋদ্ধির সাফ উত্তর, "তরুণ প্রজন্ম বইমেলায় আসছে মানে যে বই কিনছে তা নয় হয়তো। আমরা সর্বক্ষণ ইভেন্ট, স্ট্যাটাস সিম্বল আঁকড়ে চলি। বইমেলায় না গেলে বোধহয় বোকা প্রমাণিত হব ভেবে বইমেলা যাচ্ছি এমনটাও ঘটছে। অনেকেই যাচ্ছেন কতক্ষণে ফেসবুক স্ট্যাটাস দেব তা ভেবে। বইপড়া বা সিনেমা দেখা এসব করলেও, মন দিয়ে করছে না।" ঋদ্ধির চাঁচাছোলা বক্তব্য, "বই পড়ে জ্ঞান অর্জন, আত্মচেতনা যদি মানুষ করে থাকত, তাহলে আজকে ভারতে ২২ জানুয়ারি আসত না।"



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর



রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া