শুক্রবার ১২ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Election: মরুরাজ্যে ‘নির্দল’ কাঁটায় বিপাকে পড়েছে বিজেপি, দলের টিকিট না পেয়ে বিদ্রোহীরা নির্দল প্রার্থী

Rajat Bose | ১৩ নভেম্বর ২০২৩ ১৫ : ২৫


আবু হায়াত বিশ্বাস, দিল্লি: চন্দ্রভান সিং আশা করেছিলেন টিকিট পাবেন। কিন্তু শেষ মুহুর্তে দল টিকিট দেয়নি। অগত্যা ‘নির্দল’ প্রার্থী। আর ‌ভোটের রাজস্থানে বিজেপির ‘বিদ্রোহী’ নেতাদের ‘নির্দল’ প্রার্থী হওয়া নিয়ে বিপাকে পড়েছে গেরুয়া শিবির। কংগ্রেস প্রার্থীর মোকাবিলার থেকেও দলের বিদ্রোহী ‘নির্দল’ কাঁটায় জর্জরিত বিজেপি। মরুরাজ্যে বিজেপির অনেক নেতা টিকিট না পেয়ে এবার ‘নির্দল’ প্রার্থী হয়ে লড়ছেন। এবং বিজেপি প্রার্থীদের রীতিমতো চাপে রেখেছেন। যার ফলে কোথাও ত্রিকো‌ণীয়, কোথাও আবার চতুর্মুখী লড়াই। রাজস্থানে অন্তত ৩০ আসনে নির্দল কাঁটায় বিপাকে পড়েছে বিজেপি। নির্দলদের মধ্যে আছেন দলের প্রাক্তন বিধায়কও। নির্দল প্রার্থীর তালিকায় চন্দ্রভান সিং আক্যা, কৈলাশ মেঘওয়াল, ভবানী সিং রাজায়ত, জীবন রাম চৌধুরির মতো বড় নেতার নাম রয়েছে। তাদের বিদ্রোহের কারণেই চিত্তোরগড়, শাহপুরা, সাঁচোরের মতো কেনদ্রে বিজেপির প্রার্থীরা পড়েছেন মহাসঙ্কটে। চিত্তোরগড়ে টানা দু’বারের বিধায়ক চন্দ্রভান সিং আক্যা। এবার তাঁকে টিকিট দেয়নি দল। তাঁকে প্রার্থী না করায় বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় বিজেপি নেতাদের। দলীয় নেতাদের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন চন্দ্রভানের টিকিট দেওয়ার বিষয়টি যেন পুনর্বিবেচনা করা হয়। কিন্তু বিজেপি নেতৃত্ব তাঁর আবেদন গ্রাহ্য করেনি। এরপরেই নির্দল প্রার্থী হয়ে ভোট ময়দানে নেমে পড়েন তিনি। চিত্তোরগড় বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী নরপত সিং। বিদ্রোহী চন্দ্রভানের প্রার্থী হওয়ার পর নরপতের জয় নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। একইভাবে শাহপুরা (‌‌ভিলওয়াড়া)‌‌ আসনে জিতে আসছেন রাজস্থান বিধানসভার প্রাক্তন স্পিকার কৈলাশ মেঘওয়াল। বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া ঘনিষ্ঠ এই নেতাকে এবার দল টিকিট দেয়নি। এর আগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে গুরুতর দুর্নীতির অভিযোগ করে দলের চক্ষুশূল হয়েছিলেন। দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের নোটিশ পাঠানো হয় কৈলাশ মেঘওয়ালকে। নোটিশের জবাব দিয়েই দল ছেড়ে দেন তিনি। মেঘওয়ালের জায়গায় বিজেপি লালা রাম বৈরবাকে টিকিট দেয়। অন্যদিকে, কৈলাশ শাহপুরা বিধানসভা আসনে নির্দল প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়ান। কৈলাশের পুরনো কেন্দ্রে ভোটে দাঁড়ানোয় বিপাকে পড়েছে বিজেপি প্রার্থী লালারাম।   কোটার লাদপুরা আসন থেকে বসুন্ধরা রাজের সমর্থক ভবানী সিং রাজাওয়াতের টিকিট এবারও বাতিল করা হয়েছে। দল বর্তমান বিধায়ক কল্পনা দেবীকে প্রার্থী করেছে। যেহেতু রাজাওয়াত আগেই ঘোষণা করেছিলেন দল তাকে টিকিট দিক বা না দিক, তিনি অবশ্যই নির্বাচনে লড়বেন। প্রার্থী ঘোষণার আগেই রাজাওয়াত মনোনয়ন জমা দেন। পরে দল টিকিট কাটলে রাজাওয়াত নির্দল হিসেবে লড়াইয়ের ঘোষণা করেন। সাঁচোর বিধানসভা আসন থেকে লোকসভা সাংসদ দেবজি প্যাটেলকে প্রার্থী করেছে বিজেপি। সাঁচোর আসনের প্রাক্তন বিধায়ক জীবরাম চৌধুরী। তিনি বিরোধিতা করেন এবং নির্দল হিসেবে ওই আসনে লড়ছেন। বিদ্রোহী প্রার্থী জীবরাম কার্যত বিজেপি প্রার্থীর জয়ের পথে বড় কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছেন। একইভাবে বিজেপিতে টিকিট না পেয়ে বিদ্রোহী হয়েছেন অনেকে। যেমন ঝুনঝুনু থেকে রাজেন্দ্র ভাম্বু, দিদওয়ানা থেকে প্রাক্তন মন্ত্রী ইউনুস খান, বাড়মের থেকে প্রিয়াঙ্কা চৌধুরী, সুরতগড় থেকে রাজেন্দ্র ভাদু, খান্ডেলা থেকে বংশীধর বাজিয়া, ঝোটওয়াড়া থেকে আশু সিং সুরপুরা, সুজানগড় থেকে রাজেন্দ্র নায়ক, কোটপুতলি থেকে মুকেশ গোয়ালরা নির্দল হয়ে লড়ছেন। সব মিলিয়ে রাজস্থানে সংশ্লিষ্ট আসনে বিজেপির যতটা না কংগ্রেস ভয়, তার থেকে বেশি ভয় দলের বিদ্রোহী নির্দলরা!‌



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া