মুনাল চট্টোপাধ্যায়: পাঞ্জাব এফসি–‌র বিরুদ্ধে বল বয়ের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করে শাস্তির মুখে পড়েছেন ইস্টবেঙ্গল ফুটবলার কোলাডো। এবার তার থেকেও বিশ্রী আচরণের অভিযোগ আনলেন ট্রাউয়ের কোচ (‌ফেডারেশনের কাছে যদিও তিনি এখনও শুধুই ট্রাউ কর্তা হিসেবে নথিভুক্ত)‌ ডগলাস। বাগানের স্টপার ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর জাতীয় দলের ফুটবলার ড্যানিয়েল সাইরাসের বিরুদ্ধে।
ডগলাসের অভিযোগ, কল্যাণীর মাঠে ম্যাচের শেষদিকের ঘটনা। ট্রাউয়ের এক ফুটবলার আহত হয়ে মাটিতে পড়ে থাকলে দলের এক ফুটবলার বল বের করে দেন বাইরে। কেন বলটা নিজের অর্ধে বের না করে বাগানের অর্ধে বের করলেন ট্রাউয়ের ফুটবলার, তা নিয়ে বচসা বাধান বাগানের স্টপার ড্যানিয়েল সাইরাস। রিজার্ভ বেঞ্চের সামনেই ছিলেন ডগলাস। তিনি এই তুচ্ছ ব্যাপারটা এড়িয়ে যাওয়ার কথা বললে ড্যানিয়েল তেড়ে গালাগালি করেন। ডগলাসের মায়ের সম্পর্কে ছাপার অযোগ্য অশালীন মন্তব্য করেন। ডগলাস এর প্রতিবাদ করলেও ড্যানিয়েল বিরত হননি কুরুচিকর মন্তব্য করা থেকে।
এদিন ডগলাস বলেন, ‘আমার মা সম্পর্কে  ড্যানিয়েলের এই ধরনের মন্তব্যে আমি রীতিমতো শকড। মর্মাহত। তখনই বাগান কোচকে এটা জানিয়েছিলাম। উনি বলেন, ওর সঙ্গে কথা বলতে। কিন্তু ওর দেখা পাইনি। এতটাই খারাপ লেগেছে, সারারাত ঘুমোতে পারিনি। শুধু কেঁদেছি। আমি ১৭ বছর ধরে কলকাতার ফুটবলের সঙ্গে নানাভাবে জড়িয়ে। এটা আমার সেকেন্ড হোম। সকলেই এখানে আমাকে ভালবাসেন। আমার খেলা বা কোচিং নিয়ে সমালোচনা কেউ করতেই পারেন। কিন্তু আমার মাকে অপমান করার সাহস কেউ দেখায়নি। এটা এদেশের সংস্কৃতি নয়।’‌ 
কী করতে চান?‌ ডগলাসের উত্তর, ‘আমার দলের কর্তাদের কাছে ড্যানিয়েলের বিশ্রী আচরণের কথা জানাব। ওরাই ফেডারেশনের কাছে অভিযোগ জানাবে আমার মায়ের সম্পর্কে অপমানজনক মন্তব্য করায়। আশা করি এর সুবিচার পাব ফেডারেশনের কাছে।’

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top