আজকাল ওয়েবডেস্ক: ইসরোর পক্ষে আশার আলো। চেন্নাইয়ের এক প্রযুক্তিবিদ তাঁর গবেষণায় অনুমান করছেন, এখনও সম্ভবত চন্দ্রযান–২–র প্রজ্ঞান রোভার চন্দ্রপৃষ্ঠে অবিকল দাঁড়িয়ে আছে। গত বছর ৭ সেপ্টেম্বর চন্দ্রপৃষ্ঠে দক্ষিণে ভেঙে পড়েছিল বিক্রম ল্যান্ডার। কিন্তু গত চৌঠা জানুয়ারি নাসার লুনার রেকনিসাঁ অরবিট বা এলআরও ক্যামেরায় কিছু ছবি তুলেছিলেন শন্মুগা সুব্রহ্মণ্যন নামে ওই প্রযুক্তিবিদ। এই শন্মুগাই নাসাকে নিজের গবেষণার মাধ্যমে সাহায্য করেছিলেন বিক্রম ল্যান্ডারের ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পেতে। নাসা তাঁর গবেষণার স্বীকৃতিও দিয়েছিল। তাঁর নতুন ছবির উপর গবেষণা চালিয়ে তাঁর মনে হয়েছে, প্রজ্ঞান রোভার এখনও অবিকল রয়েছে।
এর কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে শন্মুগা বললেন, ‘‌আমি পুরনো চন্দ্রযানের ছবি দেখছিলাম এবং ভাবছিলাম ওই জায়গাটা দেখব যেখানে গতবছর ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পাওয়া গিয়েছিল। আমি ছবি ডাউনলোড করে নাসার সফ্‌টওয়্যার ব্যবহার করে তা বড় করলাম, আর কিছু দেখতে পেলাম, যেটা রোভারের মতোন মনে হচ্ছিল।’‌ যে ধ্বংসাবশেষের ছবি শন্মুগা পোস্ট করেছেন সেটা বিক্রম ল্যান্ডারের ল্যাংমুইর প্রোবের। এই যন্ত্রের মাধ্যমে চন্দ্রপৃষ্ঠের প্লাজমার গভীরতা এবং বিস্তার মাপা হয়। শন্মুগার ধারণা, ল্যান্ডার আছড়ে পড়ার পর রোভার ছিটকে বেরিয়ে গিয়ে বেশ কয়েক মিটার গড়িয়ে গিয়েছিল এবং সেটা ক্রমাগত ট্রান্সমিশন পাচ্ছিল। তারপর বেশ কিছু ধরে সেই বার্তা রোভার ল্যান্ডারে পাঠালেও সেটি টুকরো হয়ে যাওয়ায় ল্যান্ডার থেকে আর কোনও আদেশ যায়নি রোভারে। এবং রোভারের বার্তা পৃথিবীতেও পাঠাতে পারেনি ল্যান্ডার। তবে এবার ইসরোর কোর্টেই বল ঠেলে দিয়ে শন্মুগা বলেছেন, তাঁর গবেষণা কত দূর ঠিক তা সন্ধান করে বলতে পারবে একমাত্র ইসরোই।        ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top