অম্লানজ্যোতি ঘোষ, আলিপুরদুয়ার, ২৬ আগস্ট- আবারও চমকে দিতে চলেছে নেওড়াভ্যালি ন্যাশনাল পার্ক। ২০১৮ সালে প্রথম সমীক্ষাতেই জীব বৈচিত্র সম্পর্কে অজানা তথ্য উঠে এসেছিল। ২০১৯ সালেও একই ভাবে ১২ দিনের বায়োডাইভারসিটি অ্যাসেসমেন্ট ক্যাম্প হয়। ‌মার্চ মাসে, টানা ঠান্ডা, বৃষ্টিতে ১৫-‌২০ জন বিভিন্ন বিষয়ের বিশেষজ্ঞদের উপস্থিতিতে সমীক্ষা শেষ হয় নেওড়াভ্যালিতে। 
‌শিবির থেকে পাওয়া প্রাথমিক রিপোর্টে জানা যাচ্ছে, এবার ১৪৪ ধরনের পতঙ্গ খুঁজে পাওয়া গেছে। যার মধ্যে ৪৪টি পতঙ্গের সম্পর্কে প্রায় বিশেষ কিছুই জানা নেই। 
প্রথমবার নেওড়াভ্যালিতে পতঙ্গগুলির অস্তিত্ব রেকর্ড করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের কথায় যা নজিরবিহীন। ৪৪টি পতঙ্গের মধ্যে ১৪টি পতঙ্গ বাংলাতে প্রথমবার দেখা গেছে। একটি পতঙ্গ এমন রয়েছে যা দেশে প্রথমবার ধরা পড়েছে মানুষের চোখে। দ্বিতীয় ক্যাম্পে ১৬টি বিভিন্ন প্রজাতির পিঁপড়ের অস্তিত্ব ধরা পড়ে। সম্ভবত যার মধ্যে একটি প্রজাতি দেশে প্রথমবার বলে নিশ্চিত বিশেষজ্ঞরা। পাশাপাশি ৮৯টি প্রজাতির মাকড়সার অস্তিত্ব ধরা পড়ে। 
অনুমান করা হচ্ছে, যার মধ্যে একাধিক মাকড়সার প্রজাতির অস্তিত্ব রাজ্যে ও দেশে প্রথমবার ধরা পড়ল। ৩৭ প্রজাতির প্রজাপতির অস্তিত্ব ধরা পরে পড়েছে। তবে ১২ দিনের জীব বৈচিত্রের পর্যবেক্ষণ শিবিরে কোনও ‘‌মথ’‌ বিশেষজ্ঞ ছিলেন না। যদিও বিভিন্ন রং ও আকৃতির মথের ছবি ধরা পড়েছে। যার সবক’‌টির পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। এছাড়াও প্রচুর ‘‌অর্কিড’‌, ‘‌মাইক্রো ফ্যাঙ্গি’‌ প্রজাতির গাছের তথ্য উঠে এসেছে। আবার ২৪টি প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণীর অস্তিত্ব ধরা পড়েছে। যার সিংহভাগ বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির। 
উল্লেখ্য, ৫ বছরের একটি পরিকল্পনাকে সামনে রেখে ২০১৮ সালে প্রথমবার নেওড়াভ্যালিতে সার্বিক সমীক্ষা শুরু হয়। চলার কথা ২০২২ সাল পর্যন্ত। উত্তরবঙ্গের মুখ্য বনপাল উজ্জ্বল ঘোষ বলেন, ‘একটি জঙ্গলকে সঠিক অর্থে বুঝতে গেলে সেখানে প্রাণী উদ্ভিদের বৈচিত্র কেমন রয়েছে তা জানা প্রয়োজন। পরপর দু’‌বছর সমীক্ষা থেকে যে রিপোর্ট উঠে এসেছে তা যথেষ্টই আশাব্যঞ্জক।’‌ 
স্টেট ওয়াইল্ড লাইফ বোর্ডের মেম্বার অনিমেষ বসু  বলেন, ‘‌নেওড়াভ্যালি একটি ভার্জিন ফরেস্ট। যা আদি অকৃত্রিম রয়েছে। প্রায় ১০ হাজার ফুট পর্যন্ত উচ্চতা। পুরোটাই পাহাড়। এমন সার্ভে থেকে সহজে বোঝা যায় কী ধরনের প্রাণী ও উদ্ভিদ রয়েছে। কেউ হারিয়ে গেছে কি না?‌। বা পরিবেশগত কারণে অন্যত্র চলে গেছে কিনা।’

নেওড়াভ্যালি ন্যাশনাল পার্কে চলছে জীব পর্যবেক্ষণ। ফাইল ছবি

জনপ্রিয়

Back To Top