অম্লানজ্যোতি ঘোষ, আলিপুরদুয়ার, ১৩ মে- বুনো হাতির হামলা অব্যাহত আলিপুরদুয়ারে। রবিবার মাঝরাতের পর থেকে সোমবার ভোরবেলা পর্যন্ত পৃথক দু’‌টি ঘটনায় এক মহিলার মৃত্যু হয়, অন্যদিকে হামলা চালিয়ে পর পর ৫টি বসতবাড়ি ভেঙে ফেলে একদল হাতি। জানা গেছে, ফের হাতির হামলায় মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে কালচিনি ব্লকের নিমাতি বনবস্তি এলাকায়। স্থানীয় বাসিন্দা চিমু রাভা (‌৪৮)‌ নামে এক মহিলা সোমবার ভোরবেলা নিমাতি ফরেস্ট ভিলেজ প্রাথমিক স্কুলের পাশের রাস্তা ধরে নিজের কাজে বেরিয়েছিলেন। আচমকাই একটি বুনো দাঁতাল হাতির মুখোমুখি হন তিনি। হাতিটি তাঁকে শুঁড়ে তুলে আছাড় মারায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তঁার। 
বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের উপক্ষেত্র অধিকর্তা (‌পশ্চিম)‌ কল্যাণ রাই বলেন, ‘‌মৃতের পরিবার আবেদন করলে সরকারি আইন অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ পাবেন।’‌ অন্যদিকে, শনিবারের মতই রবিবার রাতেও মাদারিহাট ব্লকে বুনো হাতির হামলা অব্যাহত থাকলো। জানা গেছে, দেশি মদ হাঁড়িয়ার গন্ধে রবিবার রাতে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান ছেড়ে একটি বুনো দাঁতাল–সহ ২–৩ টি হাতি মধ্য খয়েরবাড়ি এলাকায় ঢুকে পড়ে। স্থানীয় বাসিন্দা মংরা অসুর, ইলিয়াস ওরাওঁ–সহ ৫ জনের ঘর ভেঙে ফেলে হাতির দলটি। বরাত জোরে প্রাণে বেঁচে যান মংরার স্ত্রী। দাঁতালটি একাধিক বাড়ির ভেতর থাকা চাল–ডাল খেয়ে সাবার করে। নষ্ট করে ভুট্টা ক্ষেতের ফসল। এলাকায় দেশি মদ হাড়িয়া বিক্রির রেওয়াজ রয়েছে। বনকর্মীদের টহলদারি থাকলেও, রাতের অন্ধকারে এলাকার ঘরবাড়ি ভেঙে জঙ্গলে অদৃশ্য হয় হাতির দলটি। রেঞ্জ অফিসার খগেশ্বর কার্জি বলেন, ‘‌ক্ষতিগ্রস্থরা আইন অনুযায়ী আবেদন করলে ক্ষতিপূরণ পাবেন। বনকর্মীরা সতর্ক রয়েছেন।’‌ ‌

হাতি হামলার পর এমনই অবস্থা এই বাড়ির। ছবি:‌ প্রতিবেদক
 

জনপ্রিয়

Back To Top