অম্লানজ্যোতি ঘোষ, আলিপুরদুয়ার, ২০ মে- লোকসভা নির্বাচনে আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল অন্তত ১ লক্ষ ২০ হাজার ভোটে জয়ী হতে চলেছে। এমনটাই দাবি জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের। সোমবার ভোটের সম্ভাব্য ফল নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠক করে তৃণমূল। আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূল সভাপতি মোহন শর্মা পরিষ্কার জানিয়ে দেন, ১ লক্ষের নিচে জয়ের মার্জিন নামবে না। সমীক্ষায় আলিপুরদুয়ার নিয়ে যা দেখানো হচ্ছে, তাকে গুরুত্বই দিতে চাইছেন না তৃণমূল নেতৃত্ব। মোহন শর্মার দাবি, বিজেপি প্রার্থী জন বারলা জলপাইগুড়ি জেলার নাগরাকাটা ব্লকের লক্ষ্মীপাড়া চা–‌‌বাগানে নিজের বাড়ির এলাকার ৪টি বুথেই পিছিয়ে থাকবেন। 
শুধু আলিপুরদুয়ার নয়, পাশাপাশি জলপাইগুড়ি আসনটিতেও তৃণমূল জিতছে, এমনই দাবি দলীয় তরফে। তৃণমূল সূত্রের দাবি, আরও বেশি মার্জিনে জয়ের টার্গেট ছিল। কিন্তু নির্বাচনের ৭ দিন আগে থেকে বিরোধী শিবির টাকা ছড়িয়েছে। তাই হয়ত মার্জিন কিছুটা কমতে পারে। ১১ এপ্রিলের পর থেকে গত ৪০ দিন ১৮৩০টি বুথ ধরে একটানা স্ক্রুটিনি করা হয়েছে। জেলার সব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই জয় নিয়ে ২০০ শতাংশ নিশ্চিত তৃণমূল। কালচিনি ব্লকে বরাবরই জয় পরাজয়ের মার্জিন কম হয়। তবুও ৭ হাজার ভোটে কালচিনি থেকে লিড থাকবে বলে ধরছে দল। তুফানগঞ্জ থেকে ন্যূনতম ২৫ হাজার ভোটের লিড থাকার কথা সেখানকার নেতৃত্ব জানিয়েছেন। তবুও সেখান থেকে ১০ হাজার ভোটের লিড ধরছে দল। ৭টি বিধানসভার প্রত্যেকটি থেকেই লিড মিলবে বলে আশাবাদী নেতৃত্ব। ভোটের ফল ঘোষণার পর ২৪ মে থেকে আলিপুরদুয়ার পুরসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু হবে বলে জানিয়েছেন দলের নেতারা। 
সোমবার মোহন শর্মা ও সৌরভ চক্রবর্তী দু’‌জনেই যৌথভাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেন। জানান, ‌বুথ থেকে ব্লক যেখানে যেখানে ভাল ফলাফল হবে, সেখানকার নেতৃত্বকে অবশ্যই পুরস্কৃত করা হবে। সাংগঠনিকভাবে দলে তাঁর কাজের দায়িত্ব বাড়ানো হবে। সৌরভ চক্রবর্তী জানান, নাগরাকাটায় তৃণমূল কংগ্রেসের এক কর্মীকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়েছে। জেলার সব ব্লকে বিজেপি অস্ত্র মজুত করেছে। আমাদের কর্মীদের শান্ত ও সংযত থাকতে বলেছি। নির্বাচন কমিশনের কাছে বিজেপি–‌‌র মজুত অস্ত্র উদ্ধারের আবেদন জানিয়েছেন তিনি। যদিও বিজেপি নেতা জয়ন্ত রায় বলেন, ‘‌পঞ্চায়েতে তৃণমূল প্রার্থী নিজের বুথে হেরেছেন। ২৩ মে ফল ঘোষণার পরই সব জেনে যাবেন।’‌

আলিপুরদুয়ারে সাংবাদিকদের মুখোমুখি সৌরভ চক্রবর্তী,  মোহন শর্মা। সোমবার। ছবি: প্রতিবেদক 

জনপ্রিয়

Back To Top