আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রিজার্ভ ব্যাঙ্ক এবং বিশ্ব ব্যাঙ্ক আশঙ্কা করেছিল। কিন্তু আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার (‌আইএমএফ)‌–এর বার্তা আরও চাপ বাড়াল। রিপোর্টে তারা জানাল, ২০২০ সালে ভারতে জিডিপি–র হার সঙ্কুচিত হতে পারে ১০.‌৩ শতাংশ। তার জেরে জিডিপি–র নিরিখে ভারতকে পিছনে ফেলবে বাংলাদেশও। 
জুনে আইএমএফ ভারতীয় অর্থনীতির সঙ্কোচন নিয়ে যে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল, তার তুলনায় এখনকার রিপোর্ট আরও নেতিবাচক। জুনে আইএমএফ ইঙ্গিত দিয়েছিল, এই সঙ্কোচন কমতে পারে ৪.‌৫ শতাংশ। এখন তাদের ধারণা, এই সঙ্কোচন হবে ১০.‌৩ শতাংশ। এ দিন তারা জানিয়েছে, সঙ্কোচনের সেই হার এতটা বাড়াতে হয়েছে এপ্রিল–জুন ত্রৈমাসিকে জিডিপি–র নিম্নগমন দেখে। ওই ত্রৈমাসিকে জিডিপি ২৩.৯ শতাংশ তলিয়ে গেছে। এর আগে বিশ্ব ব্যাঙ্ক বলেছিল, করোনা রুখতে দীর্ঘ লকডাউনই বিপর্যস্ত করেছে ভারতের চাহিদা–জোগান।
আইএমএফ মনে করছে, উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে করোনার কারণে সবথেকে বেশি ধাক্কা খেয়েছে ভারতই। ২০২১ সালের ৩১ মার্চে শেষ হচ্ছে চলতি অর্থবর্ষ। এই অর্থবর্ষে ভারতের পার ক্যাপিটা জিডিপি কমতে পারে ১,৮৭৭ মার্কিন ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় এক লক্ষ ৩৭ হাজার ৬৬০ টাকা। সেখানে বাংলাদেশের পার ক্যাপিটা জিডিপি বাড়তে পারে ১,৮৮৮ মার্কিন ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় এক লক্ষ ৩৮ হাজার ৪৮১ টাকা। 
তবে এশিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ ভারত ২০২১ সালে এই ধাক্কা অনেকটাই সামলে নেবে বলে মত তাদের। বৃদ্ধির হার হবে ৮.‌৮ শতাংশ। 
আইএমএফ–এর এই রিপোর্টের নিয়ে এদিন খোঁচা দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। টুইটারে লিখেছেন, ‘‌৬ বছর বিজেপি–র হিংসাত্মক সাংস্কৃতিক জাতীয়তাবাদের কৃতিত্ব। বাংলাদেশও টপকে যাচ্ছে ভারতকে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top