আজকাল ওয়েবডেস্ক: লোকসভায় দাঁড়িয়ে সাংসদ অধীররঞ্জন চৌধুরী বলেছিলেন, ‘‌কংগ্রেস নির্বাচনের পর খানিকটা রোগা হয়েছে, কিন্তু শেষ হয়ে যায়নি।’‌ কথাটা সম্ভবত ঠিকই বলেছিলেন। আজ তার ছত্রে ছত্রে প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। কারণ কংগ্রেসের পক্ষ থেকে দেওয়া তথ্য অনুসারে দলের প্রাপ্ত অনুদানের পরিমান বেড়েছে প্রায় ৫ গুণ। যার ফলে অঙ্কটা দাঁড়িয়েছে ১৪৬ কোটি টাকা।
এই পরিস্থিতিতে কী করে এতটা অনুদান বাড়ল?‌ তা অবশ্য দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়নি। নির্বাচন কমিশনে কংগ্রেসের পেশ করা তথ্য অনুসারে ২০১৭–১৮ অর্থিক বছরের তুলনায় ২০১৮–১৯ আর্থিক বছরে কংগ্রেসের প্রাপ্ত চাঁদার পরিমান বেড়েছে ৫ গুণ। ২০১৭–১৮ সালে কংগ্রেসের প্রাপ্ত মোট চাঁদা ছিল ২৬ কোটি টাকা। ২০১৮–১৯ সালে তারা পেয়েছে ১৪৬ কোটি টাকা। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে রোগার ধরণ যদি এমন হয় তাহলে মোটা হলে কেমন হতো?‌
যদিও প্রাপ্ত চাঁদার নিরিখে বিজেপি’‌র থেকে শত যোজন পিছিয়ে রয়েছে কংগ্রেস। কারণ ২০১৮–১৯ সালের চাঁদার হিসাব এখনও পেশ করার সাহস দেখায়নি বিজেপি। ২০১৭–১৮ সালে তাদের প্রাপ্ত চাঁদার পরিমান ছিল ১০২৭ কোটি টাকা। কংগ্রেসকে চাঁদা দিয়েছেন দলের নেতা সোনিয়া, রাহুল এবং দিগ্বিজয় সিং। মোট ৫৪ হাজার টাকা করে দিয়েছেন। কপিল সিব্বল দিয়েছেন ২ লক্ষ টাকা। পবন বনশল এবং মণীশ তিওয়ারি দিয়েছেন ৩৫ হাজার টাকা করে। নভজ্যোৎ সিং সিধুও দিয়েছেন ৩৫ হাজার টাকা। তবে সব থেকে বেশি ৫৫ কোটি টাকা দিয়েছে প্রোগ্রেসিভ ইলেক্টোরাল ট্রাস্ট।  

জনপ্রিয়

Back To Top