আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রবিবার এক নির্বাচনী জনসভায় বিজেপি নেত্রীকে ‘আইটেম’ সম্বোধন করেন কংগ্রেস নেতা কমলনাথ। তাঁর এরকম শব্দচয়ন নিয়ে তুমুল আপত্তি জানিয়ে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে বিজেপি। এরই মধ্যে মধ্যপ্রদেশের বিজেপি নেতা বিসাহুলাল সিং কংগ্রেস নেতা বিশ্বনাথ সিং কুঞ্জমের স্ত্রীকে ‘রক্ষিতা’ বলে সম্বোধন করে অস্বস্তিতে ফেললেন গেরুয়া শিবিরকে। সোমবার ওই বিজেপি নেতা কংগ্রেস নেতার দ্বিতীয় স্ত্রীকে ওই সম্বোধন করেন। এক ভিডিওয় তাঁকে একথা বলতে শোনা গিয়েছে। ভিডিওটি ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে। 
সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে জানা যাচ্ছে, ওই ভিডিওতে বিজেপি ন‌েতাকে বলতে শোনা গিয়েছে, ‘বিশ্বনাথ সিং নিজের প্রথম স্ত্রীর সম্পর্কে তথ্য গোপন করছেন কেন? মনোনয়নপত্রে নিজের রক্ষিতার নাম রেখেছেন। কিন্তু প্রথম স্ত্রীকে নিয়ে কোনও তথ্যই দেননি।’
এই মন্তব্যের পরে কংগ্রেস নেতা বিশ্বনাথ সিং মানহানির মামলা করার হুমকি দিয়েছেন বিসাহুলালকে। তিনি জানিয়েছেন, ‘আমি পনেরো বছর আগে বিয়ে করেছি। এবং আমাদের একটি চোদ্দো বছরের মেয়েও আছে। আমি ওঁর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করব। এর থেকে বিজেপি নেতাদের চরিত্রটা বোঝা যায়। একদিকে তাঁরা মৌন অনশনের পথে হাঁটছেন অন্যদিকে মহিলাদের অসম্মান করছেন।’
প্রসঙ্গত, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান কমলনাথের মন্তব্যের প্রতিবাদে সোমবার ভোপালে দু’ঘণ্টার জন্য মৌন অনশন পালন করেন। সেই প্রসঙ্গই উঠে আসে কংগ্রেস নেতার বক্তব্যে। এদিকে নির্বাচন কমিশন রাজ্যের মুখ্য নির্বাচন আধিকারিককে কমলনাথের মন্তব্য সম্পর্কে বিস্তারিত রিপোর্ট জমা দিতে বলেছে।
সোমবার কংগ্রেসের অন্তবর্তী সভাপতি সোনিয়া গান্ধীকে লেখা এক চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ দাবি করেন, দলের সমস্ত পদ থেকে কমলনাথকে সরিয়ে দিক কংগ্রেস। পাশাপাশি ওই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করুক কংগ্রেস। উত্তরে কমলনাথ শিবরাজকে লেখা এক চিঠিতে দাবি করেছেন, তিনি কোনও অসম্মানসূচক শব্দ প্রয়োগ করেননি। প্রসঙ্গত, আগামী ৩ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে মধ্যপ্রদেশের উপনির্বাচন।

জনপ্রিয়

Back To Top