আজকাল ওয়েবডেস্ক: রাজ্যে চলছে হাইভোল্টেজ ভোট গণনার কাজ। বেলা যত গড়াচ্ছে ততই স্পষ্ট হচ্ছে তৃণমূলের বিপুল জয়ের ছবি। আর এ প্রসঙ্গে তৃণমূল নেতা ববি হাকিম বলেন, তৃণমূলের বিপুল জয়ের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। কিন্তু এখন উচ্ছ্বাস দেখানোর সময় নয়। বরং এই বিপুল জয় অনেক বেশি দায়িত্ব বাড়িয়ে দিল। করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্যের মানুষকে সুরক্ষিত করার কাজ করে যেতে হবে। কোভিডে যাঁরা প্রাণ হারাচ্ছেন তাঁদের পরিবারের পাশে থাকতে হবে। দায়িত্ব নিয়ে সরকারকে কাজ করতে হবে। করোনাকালে বাংলার সামনে আরও কঠিন লড়াই। আর সেই লড়াইয়ে আমাদের ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।’‌ ইতিমধ্যেই বাংলার ২০৩ আসনে এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল। বিজেপি ৯০ আসনে এগিয়ে রয়েছে। একুশের ভোটের ফলাফলে কার্যত সাফ হয়ে গেছে সংযুক্ত মোর্চা। বাম এবং কংগ্রেস আপাতত সব আসনেই পিছিয়ে রয়েছে। ২ টি আসনে এগিয়ে রয়েছে আইএসএফ প্রার্থীরা। এ প্রসঙ্গে ববি হাকিম জানান, ‘‌বাংলার মানুষ যথেষ্ট বিবেচনা করেই ভোট দিয়েছে তৃণমূলকে। সারাবছর আমাদের নেত্রী মমতা ব্যানার্জি মানুষের জন্য কাজ করেন। আর মানুষ তাই তৃণমূলকে ভোট দিয়েছে। ফের একবার কলকাতা বন্দর থেকে জয়ী হতে পেরে বেশ ভালো লাগছে। কলকাতা বন্দরের অধিবাসীদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। মানুষের জন্য কাজ করার সুযোগ দেওয়ার জন্য মমতা ব্যানার্জির কাছেও আমি কৃতজ্ঞ। দলের কর্মীদের উদ্দেশে তিনি জানান, বিজয় মিছিল নয়, কোভিড পরিস্থিতিতে মানুষের জন্য কাজ করতে হবে সবাইকে।’‌ কলকাতার ১১ আসনের মধ্যে ১০ টি আসনে আপাতত এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল প্রার্থীরা। 

Back To Top