চন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়
শান্তিনিকেতন, ২০ সেপ্টেম্বর

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত চার সদস্যের বিশেষ কমিটি রবিবার শান্তিনিকেতন ঘুরে যেতেই পুলিশ পাহারায় ভাঙা গেট নির্মাণের কাজ শুরু করল বিশ্বভারতী। যদিও বিচারবিভাগীয় কমিটি সাত দিনের মধ্যে নির্মাণ করতে হবে বলে বিশ্বভারতী ও জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়। পাঁচিল–কাণ্ডে পৌষমেলার মাঠের পশ্চিম দিকে গেট এবং কংক্রিটের স্তম্ভ সেদিন ভেঙে দিয়েছিল আন্দোলনকারীরা। 
হাইকোর্টের বিশেষ কমিটির নির্দেশ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এদিন কাজ শুরু করে দেয় বিশ্বভারতী। বিচারপতিরা জেলা প্রশাসন ও বিশ্বভারতীকে যৌথভাবে বিশ্বভারতী, শান্তিনিকেতনের গুরুত্ব বুঝে একসঙ্গে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন। সেই মতো এই প্রথম বিশ্বভারতীর কর্মসচিব ও জেলাশাসক যৌথভাবে প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে স্থানীয় মানুষ ও ব্যবসায়ী সমিতির প্রতিনিধিদের সঙ্গেও হাইকোর্টের কমিটি কথা বলবে। এছাড়াও প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে মেলার মাঠের পশ্চিম দিকের স্থায়ী গেট ভেঙে দেওয়ার ফলে ওই এলাকায় স্থায়ী শৌচাগার থেকে লক্ষাধিক টাকার সম্পত্তি চুরি গেছে। আরও কিছু মূল্যবান জিনিস সেখানে রয়েছে। সেগুলো রক্ষা করার জন্য রাজ্য এবং জেলা প্রশাসনকে অনুরোধ করেছিল বিশ্বভারতী। সেই অনুরোধে সাড়া দিয়ে মেলার মাঠের পশ্চিম দিকের ওই অংশটায় স্থায়ীভাবে বীরভূম জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 
উল্লেখ্য, বিশ্বভারতী পাঁচিল কাণ্ডে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টিবি রাধাকৃষ্ণনের নির্দেশে গঠিত হয় বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে চার সদস্যের বিশেষ কমিটি। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়াও কমিটিতে রয়েছেন বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়, অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল ওয়াই জে দস্তুর, রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। এঁরা পৌষমেলার মাঠ ঘুরে দেখে উপাচার্যের দপ্তরে বৈঠকে বসেন।

জনপ্রিয়

Back To Top