আজকাল ওয়েবডেস্ক:  মহামারী এবং তার জেরে হওয়া লকডাউনের ফলে বিশ্ব জোড়া আর্থিক সঙ্কটের জোড়া ফলায় ধুঁকছে প্রায় সব দেশ। সমস্যা মোকাবিলায় কড়া পদক্ষেপ করেছে কুয়েত। স্থানীয় সময় রবিবার কুয়েত সরকার ড্রাফট্‌ এক্সপ্যাট কোটা বিল বা খসড়া আনুপাতিক সংরক্ষণ বিলে অনুমোদন দিয়েছে। বিলে বলা হয়েছে, কুয়েতে বসবাসকারী অন্য দেশের নাগরিকদের সংখ্যা কখনওই দেশের মোট জনসংখ্যার ১৫ শতাংশের বেশি যেন না হয়। কুয়েত ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির আইনি এবং আইন প্রণয়ন কমিটি ওই খসড়া সংরক্ষণ বিলটি সংশ্লিষ্ট কমিটিতে পাঠাবে পরবর্তী গঠনমূলক পরিকল্পনার জন্য।
এই বিল অনুমোদিত হলে সেখানে বসবাসকারী কমপক্ষে আট লক্ষ ভারতীয়রা বাধ্য হবেন কুয়েত ছাড়তে। কারণ কুয়েতের ৪৩ লক্ষ এবং তার মধ্যে ৩০ লক্ষই এক্সপ্যাট বা অন্য দেশের বাসিন্দা। এই ৩০ লক্ষের মধ্যে ১৪.‌৫ লক্ষ ভারতীয় নাগরিক। ফলে এই বিল অনুমোদিত হয়ে গেলেই ওই ১৪.‌৫ লক্ষের মধ্যে আট লক্ষ ভারতীয়কে কুয়েত ছাড়তেই হবে। এই সব ভারতীয়রা কেউ কুয়েতের বিভিন্ন হোটেলে কাজ করেন। কেউ কেউ বিভিন্ন বহুজাতিক কোম্পানি বা আন্তর্জাতিক ব্যাঙ্কে রয়েছেন। এছাড়া পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলির বহু গ্রাম থেকেই অনেকে উপসাগরীয় এই দেশে নির্মাণকর্মী হিসেবে কাজ করেন। এর মূল কারণ অবশ্যই দারিদ্র। কুয়েতে কাজ করতে গিয়ে মোটা অঙ্কের অর্থ উপার্জন করে তা দেশে পরিবারের কাছে পাঠান এই সব প্রবাসী ভারতীয় নাগরিকরা। তবে অনেক সময়ই দেখা যায়, এঁদের বেশিরভাগ অংশই একসঙ্গে অনেকে মিলে গাদাগাদি করে একসঙ্গে থাকেন যাতে সেখানে অর্থ বাঁচিয়ে সেই অর্থ দেশে পরিবারকে পাঠাতে পারেন তাঁরা।
যেমন আমেরিকা এবছরের মতো এইচ১–বি ভিসা বন্ধ করে দেওয়ার ফলে বিপদে পড়েছেন সেখানে কর্মরত বহু ভারতীয়  চরম বিপাকে পড়েছেন। যদিও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ভোটে ডেমোক্র‌্যাট পদপ্রার্থী জো বিডেন আশ্বাস দিয়েছেন, তিনি জিতলে ওই সাসপেনশন তুলে নেবেন।
সূত্রের খবর, নিজেদের দেশে মহামারী পরবর্তী অর্থনৈতিক সঙ্কট কাটাতে দীর্ঘ দিন ধরেই কুয়েতে বসবাসকারী বিদেশি নাগরিকদের সংখ্যা কমানোর জন্য সরকারকে দাবি জানাচ্ছিলেন মন্ত্রী এবং সরকারি অফিসাররা। এর ফলে নিজেদের দেশের নাগরিকদের কর্মসংস্থানে অনেক সুবিধা হবে বলে মনে করছে কুয়েত সরকার। কুয়েতের প্রধানমন্ত্রী শেখ সাবাহ্‌ আল খলিদ আল সাবাহ্‌ কিছু দিন আগেই এই সমস্যার নিদান হিসেবে বিদেশি নাগরিকদের সংখ্যা ৭০ শতাংশ থেকে ৩০ শতাংশে কমানোর প্রস্তাব দিয়েছিলেন।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top