নীলাঞ্জনা সান্যাল: স্কুলপড়ুয়াদের মধ্যে ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স সম্পর্কে আগ্রহ তৈরি করতে ‘‌স্কুল কানেক্ট’‌ প্রকল্প শুরু করল মৌলানা আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। বিভিন্ন স্কুলের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ প্রতিনিধি দল। শুধু বিজ্ঞান নয়, কলা এবং বাণিজ্য বিভাগের পড়ুয়াদের সঙ্গেও কথা বলছেন তাঁরা। ইঞ্জিনিয়ারিং ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নানা ধরনের কোর্স আছে  যা কলা এবং বাণিজ্যের পড়ুয়ারা পড়তে পারে। সে সম্পর্কেও তাদের অবহিত করা হচ্ছে। 
স্কুলপড়ুয়াদের অনেকেই বুঝতে পারে না, স্কুলের শেষ পরীক্ষায় পাশ করার পর তারা কী পড়বে, কোথায় যাবে। অনেকেই চায় ইঞ্জিনিয়ার হতে। কিন্তু ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের কোন বিষয়টি নিয়ে পড়লে তার সুবিধা হবে বা বিষয়টি কোথায়  পড়ানো হয় অনেক ক্ষেত্রেই সে সম্পর্কে কোনও ধারণা থাকে না। ‘‌স্কুল কানেক্ট’‌ প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে সেই ধারণাটাই তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। যাতে স্কুলের শেষ পরীক্ষা দেওয়ার পরই কী পড়ব কোথায় পড়ব নিয়ে তাদের মধ্যে কোনও সংশয় না থাকে। আগে থেকেই তারা যাতে এ ব্যাপারে সচেতন হয় এবং  ঠিক সময়ে ঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারে। 
প্রতিবছরই ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে আসন ফাঁকা থেকে যাচ্ছে। নাম নথিভুক্ত করেও শেষ মুহূর্তে ভর্তি হচ্ছেন না পড়ুয়ারা। বেশ কয়েকবছর ধরে চলা চাকরির বাজারে মন্দা ছাড়াও আরেকটি কারণ হল কিছু ক্ষেত্রে কোথায় কী কোর্স পড়ানো হয়, সেই কোর্স পড়ে কী ধরনের চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ইত্যাদি সম্পর্কে স্বচ্ছ কোনও জ্ঞান না থাকাও, মনে করছে বিশ্ববিদ্যালয়। উপাচার্য সৈকত মৈত্র বলেন, ‘‌এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য মোটিভেট, ইনস্পায়ার, অ্যাট্রাক্ট। ভবিষ্যতে পড়ুয়ারা কী নিয়ে পড়বে তার একটা দিশা দেখানো হচ্ছে। কেরিয়ার কাউন্সেলিং করা হচ্ছে।’‌ 
ইতিমধ্যেই ৩০টির মতো স্কুলে পৌঁছে গেছে এই প্রকল্পের বিশেষ প্রতিনিধি দল। প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে কী কী কোর্স পড়ানো হয় সে সম্পর্কে জানানো হচ্ছে। এআইসিটিই অনুমোদিত ইঞ্জিনিয়ারিং এবং নন–ইঞ্জিনিয়ারিং— দু’‌ধরনের কোর্স সম্পর্কেই বিশদে জানানো হচ্ছে। এবার পড়ুয়াদের কাছ থেকে জানতে চাওয়া হচ্ছে তারা কিসে আগ্রহী। এরপর সেই কোর্সটির ওপর একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হচ্ছে। উদ্দেশ্য একজন পড়ুয়া যাতে কোর্সটি সম্পর্কে আরও বিশদে জানার চেষ্টা করে। এই জানতে গিয়েই সে বুঝতে পারবে ভবিষ্যতে সে এই বিষয়টি নিয়ে পড়বে কী পড়বে না। প্রতিযোগিতায় জয়ী পড়ুয়াদের পুরস্কৃতও করা হচ্ছে।‌‌

প্রতীকী ছবি।

জনপ্রিয়

Back To Top