আজকাল ওয়েবডেস্ক: একটা মানুষ – ভাষাহীন, ধর্মহীন, গোত্রহীন একটা মানুষ। কী নাম তার? আনন্দ কিংবা উচ্ছ্বাস! পাহাড় কিংবা সমুদ্র! যা খুশি হতে পারে। এই নো ম্যানস ল্যান্ডে একা একা ছেলেটি নিজেকে খোঁজে। বারবার আবিষ্কার করে নিতে চায় ফেলে আসা ক’টা বছর, প্রেম, যন্ত্রণা। হত্যাকে সেলিব্রেট করে। ছেলেটির দিন-রাতের সঙ্গী একটা স্বপ্ন। সে জানে, বাস্তবে বাঁচার চেয়ে স্বপ্নে বাঁচা ঢের ভালো। সে চোখ বোজে। সে চোখ খোলে। সামুদ্রিক কুয়াশা আর জলের তরঙ্গে সে হাতড়ে বেড়ায় নিজেকেই। সেলিব্রেটের উপকরণ হিসাবে বেছে নিতে চায় টেলিফোন, ছুরি, ঘুমের ওষুধ, নীল আলো, কলকাতার জনবহুল পথ আর কাবাডি খেলাগুলোকে। অর্থহীন জীবন পেতে থাকে বেঁচে থাকার সুর। কখনও কখনও এই একাকিত্বে বাস করে অজস্র মানুষ। সাক্ষী থাকে চোখ আর দেখার নেশা।

 

ঠিক এরকমই একটা 'সাইলেন্ট' গল্প নিয়ে নির্মিত প্রতীক দে চৌধুরীর প্রথম স্বল্পদৈর্ঘ্যের ছবি 'চোখ'। ইতিমধ্যেই মুক্তি পেয়েছে এই ছবির আখ্যান আবহ৷ আবহ নির্মাণ করেছেন সুপ্রিয় মিত্র। নিজেরা টাকা জমিয়ে অনেকদিন ধরে এই ছবিটি নির্মাণ করেছেন। থিম মিউজিকে রাখার চেষ্টা করা হয়েছে সামুদ্রিক ঢেউয়ের সঙ্গে অদ্ভুত এক হারমনির প্রয়োগ ঘটাতে। যেখানে মানুষের চাপা কান্নার ধ্বনি তীব্র। সব শেষে একজন চোখ খোলে। তারপর?  জানা যাবে আরও কয়েকদিন পর। আপাতত এই ছবি পোস্ট প্রোডাকশনে রয়েছে। পুরো ছবিটিতে একটি মাত্র চরিত্র। অভিনয় করেছেন সুমন সাধু। সামগ্রিক পরিচালনা এবং প্রযোজনার দায়িত্বে প্রতীক দে চৌধুরী।

জনপ্রিয়

Back To Top