আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এত বছর পেরিয়ে এসে সোনা কেবল ধর্মীয় তাৎপর্য বা অলঙ্কারের অহঙ্কারে নয়, বিনিয়োগেরও (Gold Investments) এক মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। সোনার বিপুল মূল্যের কারণে সম্পত্তি হিসেবেও সোনার গুরুত্ব অপরিসীম। আর সেই কারণেই সোনায় বিনিয়োগের গুরুত্ব বাড়ছে।
সোনা নানাভাবে বিনিয়োগ করা যায়। সরাসরি হোক বা মিউচুয়াল ফান্ড ও বন্ডের মাধ্যমেও সোনায় বিনিয়োগ করা যায়। সোনায় বিনিয়োগের সবচেয়ে পুরনো পদ্ধতি হল সোনা (‌Physical Gold)‌ ক্রয়। কোনও সোনার দোকান থেকে অলঙ্কার হোক অথবা সোনার মুদ্রা কেনা যায়। তবে মনে রাখবেন, অলঙ্কার কেনার সময় আপনি কেবল সোনার বাজারমূল্যই দিচ্ছেন না। পাশাপাশি কারিগরি মূল্যও দিতে হচ্ছে। এর ফলে সোনার দামের উপর ১৫ শতাংশ বেশি টাকা দিতে হচ্ছে। সোনার মুদ্রা কেনা তাই বিনিয়োগের ক্ষেত্রে অধিক লাভজনক উপায়। গোল্ড ইটিএফ (‌Gold ETF)‌ হল‌ বিনিময়–বাণিজ্যের তহবিল যা সোন‌ায় বিনিয়োগ করে। এখানে ৯৯.৫% হল খাঁটি সোনায় বিনিয়োগ। ৯০% শতাংশই সোনার পিছনে যায়। বাকিটা লাগে অন্যান্য খাতে। এর সবথেকে বড় উপায় হল এটা সুবিধা মতো বিনিয়োগের সুযোগ দেয়। অর্থাৎ তুল্যমূল্য ভাবে কম অর্থও বিনিয়োগ করার সুযোগ রয়েছে। গোল্ড মাইনিং শেয়ারে (‌Gold Mining Shares)‌ বিনিয়োগ করাও সোনায় বিনিয়োগের আর এক আকর্ষণীয় উপায়। গোল্ড মাইনিং সংস্থার শেয়ার আপনি সরাসরি কিনতে পারেন।

জনপ্রিয়

Back To Top