আজকালের প্রতিবেদন
গান্ধী জয়ন্তীর পুণ্যলগ্নে প্রকাশিত হল ‘‌মহাত্মা ফর ইউ’‌। সত্যম রায়চৌধুরী সম্পাদিত ‘‌ফর ইউ’‌ সিরিজে সাম্প্রতিকতম সংযোজন মহাত্মা গান্ধীর ওপর এই বইটি। ‘‌দ্য অথরস ক্লাব ওয়ার্ল্ডওয়াইড’‌ আয়োজিত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে গুণিজনদের উপস্থিতিতে বইটি প্রকাশ করলেন ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর গান্ধীয়ান স্টাডিজ ড.‌ এন রাধাকৃষ্ণন ও আজাদ হিন্দ ফৌজ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার (‌অবসরপ্রাপ্ত)‌ আর এস ছিকারা। ২০১৯ সালে মহাত্মার ১৫০তম জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠানের সূচনা করেছিল এই ক্লাব। তার সমাপ্তি অনুষ্ঠানে গত ২ অক্টোবর পৃথিবীর নানা প্রান্ত থেকে বিশিষ্ট মানুষেরা যোগ দিয়েছিলেন। প্রায় তিন ঘণ্টাব্যাপী আলোচনাচক্রে তাঁরা বললেন গান্ধীর জীবন ও কর্ম নিয়ে। কলকাতার স্টুডিওতে সত্যম রায়চৌধুরী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ‘‌দ্য অথরস ক্লাব ওয়ার্ল্ডওয়াইড’‌–‌এর প্রেসিডেন্ট সিইও ড.‌ দীপঙ্কর রায় এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট জসমিত সিং অরোরা। নিজের নিজের শহর থেকে যোগ দেন বিশিষ্ট অভিনেতা অনন্ত মহাদেবন, ইউনেস্কো সেন্টার ফর পিস–‌এর চেয়ারম্যান জামাইকার গাই জোকেন, এডুকেশন অ্যাফেয়ার্স ফোরাম–‌এর ডিরেক্টর গ্রিসের রানিয়া লোম্পু প্রমুখ। দেশাত্মবোধক গানে মুগ্ধ করেন সাধনা সরগম, সুদেশ ভোসলে ও সিদ্ধান্ত ভোসলে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন নিধি কুমার।
জাতির জনকের বর্ণময় জীবন ও জীবনদর্শন নিয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাধাকৃষ্ণন, ব্রিগেডিয়ার ছিকারা এবং গাই জোকেন তাঁর শান্তি ও মানবতার আদর্শকে তুলে ধরেন। জোকেনের মতে, গান্ধীজি সামাজিক ন্যায়বিচারের সবচেয়ে বড় প্রবক্তা। রাধাকৃষ্ণন জাতির জনককে বর্ণনা করেন ‘‌ইনস্ট্রুমেন্ট অফ পিস’‌ হিসেবে। তিনি মনে করিয়ে দেন, গান্ধী বলেছিলেন, যে সমাজে নারীর সম্মান রক্ষিত হয় না, সে সমাজের টিকে থাকার প্রয়োজন নেই। ব্রিগেডিয়ার ছিকারা গান্ধীজি ও নেতাজির সম্পর্ক বিশ্লেষণ করে দেখান, মতবিরোধ সত্ত্বেও তাঁদের পারস্পরিক শ্রদ্ধার জায়গাটি কতখানি ছিল। নিজের জীবনে মহাত্মা গান্ধীর প্রভাব নিয়ে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ সত্যম রায়চৌধুরী। তাঁর কথায়, ‘‌লিডার অফ দ্য ওয়ার্ল্ড’‌ গান্ধী বহুমুখী ব্যক্তিত্বের অধিকারী ছিলেন বলেই তাঁকে বলা যায় ‘‌গ্রেটেস্ট ইনোভেটর’‌। ড.‌ দীপঙ্কর রায় বলেন, তাঁদের সংগঠন গান্ধীর সাম্যবাদ ও মানবতার আদর্শে বিশ্বাসী। বিশ্বে শান্তি বিরাজিত হোক, একটি ঐক্যবদ্ধ দেশ হয়ে উঠুক পৃথিবী। মানুষ খাদ্য পেলে, শিক্ষা পেলে তবেই তো বই পড়তে পারবে। সেই লক্ষ্যে কাজ করে চলেছে ‘‌দ্য অথরস ক্লাব ওয়ার্ল্ডওয়াইড’‌।
এই অনুষ্ঠানের আর এক বড় আকর্ষণ ছিল গান্ধী পিস অ্যাওয়ার্ড। প্রাপক বারোজন। ড.‌ এন রাধাকৃষ্ণন, ব্রিগেডিয়ার (‌অবসরপ্রাপ্ত)‌ আর এস ছিকারা, উসাইন বোল্ট, প্রিন্স জগদীশ দানেটি, শ্বেতা ঝা, রানিয়া লোম্পু, এভারটন হান্নাম, ক্রেসি ক্রেসেনজা, অনন্ত মহাদেবন, হ্যারিয়েট টারনার রিভাস, গাই জোকেন ও সত্যম রায়চৌধুরী।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top