আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ লাগাতার ২৫ দিন ধরে দিল্লি সীমান্তে প্রতিবাদ করছেন কৃষকরা। দাবি, নতুন কৃষি আইন প্রত্যাহার করতে হবে কেন্দ্রকে। দিল্লির তীব্র ঠান্ডাকে উপেক্ষা করেই খোলা আকাশের নীচে প্রতিবাদ করছেন। তাঁদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন বহু সাধারণ মানুষ থেকে বিশিষ্ট। সাহায্যের জন্য হাজির করেছেন একের পর এক জিনিস। কখনও রুটি তৈরির যন্ত্র, কখনও সোলার প্যানেল। এবার কৃষকদের জন্য প্রতিবাদস্থলে বসল ওয়াটার গিজার। ব্যবস্থা করলেন স্বেচ্ছাসেবীরা। 
একেবারে ঘরোয়া প্রযুক্তির। কাঠকয়লার আগুনে গরম হবে জল। চাইলে সেই জলে কৃষকরা স্নান করতে পারবেন। রান্না, মুখ ধোওয়ার কাজেও ব্যবহার করতে পারবেন। বড় জলের ট্যাঙ্কের মাঝে কাঠকয়লা পোড়ানোর জায়গা। সেখানে পুড়বে জ্বালানি। গরব হবে জল।
আন্দোলনকারী ৫২ বছরের মনজিন্দর সিং জানালেন, পাঞ্জাবের ঘরে ঘরে এই প্রযুক্তিতেই জল গরম করা হয়। প্রত্যেক ঘরেই রয়েছে এই গিজার। প্রতিবাদস্থলে লঙ্গরে রান্নার জন্য দেওয়া হয়েছে গিজারটি। তবে যে কেউ ব্যবহার করতে পারেন। 
এগুলো তৈরিতে খরচ পড়ে তিন থেকে সাড়ে তিন হাজার টাকা। তবে দিল্লির শীতে দারুণ কার্যকরী। শুধু কয়লা নয়, ঘর বা রান্নার কাজে যে বর্জ্য উৎপন্ন হয়, তা পুড়িয়েও এই গিজারের জল গরম করা যায়। এক স্বেচ্ছাসেবী জানালেন, রোজ লঙ্গর থেকে ট্রাক ভর্তি বর্জ্য ফেলা হয়। সেগুলো এবার জল গরমের কাজে লাগানো যাবে। এর আগে আন্দোলনকারীদের জামা কাচার জন্য ওয়াশিং মেশিনও দিয়েছিলেন কয়েক জন স্বেচ্ছাসেবী। 

জনপ্রিয়
আজকাল ব্লগ

Back To Top