আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বারবার অভিযোগ করেছিলেন, চীনেই উৎপত্তি করোনা ভাইরাসের। দুনিয়ার আরও কিছু দেশের বিজ্ঞানীরাও এই অভিযোগ তুলেছিলেন। এবার এই অভিযোগকে খাতায় কলমে প্রমাণ করে ছাড়লেন নরওয়ে এবং ব্রিটেনের এক দল বিজ্ঞানী। দাবি করলেন, চীনের গবেষণাগারেই তৈরি হয়েছে করোনা ভাইরাস। খুব শিগগিরই বায়োফিজিক্স ডিসকভারির সংখ্যায় প্রকাশিত হবে এই গবেষণা।
এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের দাবি, ব্রিটিশ বিজ্ঞানী অঙ্গাস ডালগ্লেইস এবং নরওয়ের বিজ্ঞানী ড. বিরজার সোরেনসেন ২২ পাতার একটি রিপোর্ট তৈরি করেছেন। যাতে এ বিষয়ে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেওয়া আছে। 
ওই দুই বিজ্ঞানী জানিয়েছেন গত বছর কোভিড টিকা তৈরির জন্য ভাইরাসটির বিশ্লেষণ করেছিলেন তাঁরা। সেই সময় ভাইরাসের ‘আঙুলের ছাপ’ মিলেছিল বলে দাবি তাঁদের। দু’জনেরই দাবি, ইউহানের এক ল্যাবরেটরিতে একটি গবেষণার কাজ চলছিল। সেই গবেষণার ওপর অনেক আগেই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল আমেরিকা। এই বিতর্কিত গবেষণায় দেখা হচ্ছিল, বাদুড়ের দেহ থেকে প্রাপ্ত করোনা ভাইরাসের মধ্যে কিছু পরিবর্তন আনলে ঠিক কতটা ভয়াবহ হয়ে উঠতে পারে এই মারণ ভাইরাস। 
ডালগ্লেইস এবং সোরেনসেনের দাবি, চিনা বিজ্ঞানীরা বাদুড়ের দেহ থেকে প্রাপ্ত সার্স কোভ–২ ভাইরাসটিতে আরও কিছু প্রোটিন স্পাইক যুক্ত করে দেন। তার ফলেই এতটা মারাত্মক হয়ে উঠেছে এই ভাইরাস। দুই বিজ্ঞানী এও বলেছেন, রেট্রো ইঞ্জিনিয়ারিং পদ্ধতিতে ভাইরাসটি তৈরি করা হয়েছে। এমনকী ভাইরাসের চরিত্রও বদল করা হয়েছে।
বিজ্ঞানীরা এও দাবি করেছেন, ইউহানের যে গবেষণাগারে এই ভাইরাসটি তৈরি হয়, সেখানকার সব নথি নষ্ট করা হয়েছে। গবেষকদের ভয় দেখিয়ে চুপ করানো হয়েছে। 
 

জনপ্রিয়

Back To Top