মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Exclusive: এত আনন্দ করে বিয়ে প্রথম: কাঞ্চন।। কানপাশা পরতেই শাশুড়ির ছোঁয়া পেলাম: শ্রীময়ী

নিজস্ব সংবাদদাতা | ০৩ মার্চ ২০২৪ ১৯ : ০৮


১২ বছরের লড়াই শেষ। জীবনের ঘাত-প্রতিঘাতে প্রতি মুহূর্তে পাশে পেয়েছেন শ্রীময়ী চট্টরাজকে। তাই ২ মার্চ রীতি মেনে সাতপাকে বেঁধে সেই ভালবাসাকে সম্মান জানালেন কাঞ্চন মল্লিক। হাসিঠাট্টা-নাচাগানায় বাসর রাত জমজমাট। কিন্তু পরের দিনই নতুন বউয়ের মুখে একরাশ মেঘ। মা-বাবা, চেনা বাড়ি ছেড়ে স্বামীর ঘরে। চোখের জলে ভিজে, মা-বাবার ঋণ কনকাঞ্জলিতে শোধ করে পা বাড়িয়েছেন শ্বশুরবাড়িতে। সারাটা পথ তাঁকে আগলেছেন বিধায়ক-অভিনেতা। বিয়ে মিটতেই বরের পদবি নিজের নামের সঙ্গে জুড়ে নিয়েছেন তিনি। শ্রীময়ী এখন চট্টরাজ-মল্লিক। বিয়ের সমস্ত ছবি আজকাল ডট ইনেই প্রথম। সৌজন্যে খ্যাতনামী চিত্রগ্রাহক তথাগত ঘোষ এবং তাঁর টিম।



সিঁদুরে মুখ রাঙা। কান্নাভেজা মুখ তাতেই বুঝি আরও লাল? এক আত্মীয়া তাঁর হাতে কনাকঞ্জলির চাল তুলে দিতেই কান্নার দমক আরও বেড়েছে। একই ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন শ্রীময়ীর মা-বাবাও। এত লড়াইয়ের পরে সন্তান ঘরে-বরে। সেটা অবশ্যই সুখের। পাশাপাশি, এত বছর যাকে আদরে-স্নেহে বড় করলেন তাঁকে পরের ঘরে পাঠিয়ে দেওয়া একই রকমের যন্ত্রণার। তবুও মেয়ের মুখ চেয়ে, বাকি আত্মীয়দের অনুরোধে শোক সামলেছেন তাঁরা। 



নিয়ম অনুযায়ী সকালে শ্বশুরবাড়িতে পা রাখেন শ্রীময়ী। কেমন কাটল সারা দিন? জানতে আজকাল ডট ইন যোগাযোগ করতেই উচ্ছ্বসিত অভিনেত্রী। বললেন, ‘‘চেনা বাড়িটাই নতুন করে চিনছি। জা, ভাসুর, দেওর, ননদ— সবাই চেনা। একটা রাতেই সম্পর্কগুলোর বাঁধন যেন আরও দৃঢ়!’’ রীতি মেনে দুধেআলতা পা থেকে টোপর-মুকুটের পালক নিয়ে খেলা, কড়ি খেলা, আংটি খেলা, চালখেলা, দুধ উথলোনো, জ্যান্ত মাছ ধরা— সব মেনেছেন তিনি। জানিয়েছেন, আসার আগে মাকে ভোলাতে দুঃখ চেপে খুনসুটিতেও মাততে হয়েছিল তাঁকে। শ্বশুরবাড়িতে এসে শাশুড়ির রেখে যাওয়া কানপাশা, আর দুল আশীর্বাদ হিসেবে তাঁর হাতে তুলে দিয়েছেন কাঞ্চন। শ্রীময়ীর দাবি, ‘‘ওগুলো পরতেই যেন শাশুড়ি মায়ের ছোঁয়া পেলাম। তখনও কেঁদে ফেলেছি। আমি এই প্রজন্মের। কিন্তু পুরনো মানসিকতার। যৌথ পরিবারে বড় হয়েছি। অনেক জন নিয়ে। তাই একা থাকতে ভাল লাগে না। শ্বশুরবাড়িতে বিশেষ করে শাশুড়ির থাকা খুব জরুরি। মায়ের মতো একমাত্র তিনিই আগলাতে পারেন।’’ 



শ্বশুরবাড়িতে পা রেখেই নাকি রান্নাঘরে চা করতে দৌড়েছিলেন শ্রীময়ী! বাড়ির সবাই প্রায় পাঁজাকোলা করে তাঁকে ঘরে ঢুকিয়ে দিয়েছেন। এবং কাঞ্চনের মৃদু শাসন, ‘‘এক্ষুণি এসব করিস না। হাত কালো হয়ে যাবে।’’ হাসতে হাসতে অভিনেত্রী বলেছেন, ‘‘বলেই ফেলেছি, এত ভালবাসা রাখব কোথায়?’’ খুশি, তৃপ্ত দুই পরিবার। নতুন বউকে চোখে হারাচ্ছেন বিধায়ক-অভিনেতা। তিনি বাড়ি ফিরে একান্তে অভিনেত্রী স্ত্রীকে বলেছেন, ‘‘প্রথম বিয়েতেও জাঁকজমক ছিল। দ্বিতীয় বিয়েও হয়েছে সবাইকে নিয়ে। কিন্তু তৃতীয় বিয়ের কাছে সে সবই যেন ফিকে! এত আনন্দ করে যে বিয়ে হতে পারে, সাতপাকে বাঁধা পড়ার নিয়ম যে এত রঙিন, তোকে না বিয়ে করলে জানতেই পারতাম না!’’ সেই বউয়ের মুখ ‘কালরাত্রি’তে দেখতে পাবেন না! কাঞ্চনের মতোই কি মনখারাপ শ্রীময়ীরও? একটু থেমে স্নিগ্ধ স্বরে তাঁর জবাব, ‘‘৩৬৪ দিন দেখার জন্য একটা রাতের বিরহ সহ্য করতেই পারি।’’




বিশেষ খবর

নানান খবর

Charlie Chaplin Birthday 2024 #charliechaplin #birthday #BirthAnniversary #aajkaalonline

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া