শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

CARNIVAL KOLKATA : কার্নিভালের অপেক্ষায় কলকাতা

Sumit | ২৬ অক্টোবর ২০২৩ ১৫ : ৩৪


রিনা ভট্টাচার্য, কলকাতা : কলকাতা কার্নিভাল। বাংলার দুর্গাপুজোর সঙ্গে মিশে রয়েছে সংস্কৃতি, কৃষ্টি, ঐতিহ্য। বিশ্বের মানুষের কাছে বাংলা তুলে ধরবে তার সংস্কৃতিকে কার্নিভালের মধ্যে দিয়ে। বিকেল ৪টেয় ঐতিহাসিক রেড রোডে শুরু হবে কার্নিভাল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির লেখা ও সুরারোপিত গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করবেন বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী ডোনা গাঙ্গুলি। অনুষ্ঠানের সূচনাও হবে এই নাচের মধ্য দিয়ে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হয়েছে তার রিহার্সালও। রেড রোডের কার্নিভালে ১৮ হাজার দর্শক প্রত্যক্ষ করবেন বাংলার দুর্গাপুজোর শিল্প সুষমা। উপস্থিত থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ও তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যরা। থাকছেন বহু বিদেশি অতিথি। উপস্থিত থাকবেন সমাজের সর্বস্তরের বিশিষ্ট মানুষেরা। চলচ্চিত্র জগৎ থেকে সাহিত্য, শিল্প, ক্রীড়া, বাণিজ্য— ‌সমস্ত ক্ষেত্রের নক্ষত্ররা হাজির থাকবেন মঞ্চে। বস্তুত কার্নিভাল ঘিরে চাঁদের হাট বসবে রেড রোডে। কার্নিভালে মোট ৯৬টি পুজো কমিটি প্রতিমা নিয়ে অংশগ্রহণ করবে। রেড রোডে ২টি মঞ্চ তৈরি হয়েছে। ইউনেস্কো বাংলার দুর্গাপুজোকে হেরিটেজ স্বীকৃতি দিয়েছে। ইউনেস্কোকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে কার্নিভালে উপস্থিত থাকার জন্য। রেড রোডে তৈরি হওয়া দুটি মঞ্চের একটিতে থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ও তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যরা, অন্যটিতে আমন্ত্রিত অতিথিরা। এদিনের উৎসবে বাংলার সংস্কৃতির নানা দিক তুলে ধরা হবে। অংশগ্রহণকারী প্রতিটি পুজো কমিটি আলাদা আলাদা করে থিম তৈরি করেছে।গত বছর যত মানুষ এসেছিলেন কার্নিভাল দেখতে উদ্যোক্তাদের আশা এবার তা ছাপিয়ে যাবে। এই প্রথমবার ধর্মতলা, রেড রোড সংলগ্ন ট্রাফিক পুলিশের যে সমস্ত জায়ান্ট স্ক্রিন রয়েছে সেখানে দেখানো হবে কার্নিভাল। কার্নিভালে উপস্থিত থাকবেন কলকাতায় থাকা বিভিন্ন দূতাবাসের শীর্ষকর্তারা। আমন্ত্রিত বিদেশি অতিথিদের মধ্যে অনেকেই কলকাতায় পৌঁছে গেছেন। দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকেও অনেকেই এসেছেন কার্নিভাল দেখতে। দুর্গাপুজোর মধ্যে দিয়ে বাংলা ও বাঙালির শিল্প–‌চেতনা গোটা বিশ্বে সমাদৃত। তা প্রত্যক্ষ করতেই এবার বহু মানুষ আসবেন। কার্নিভালে প্রতি বছরই বিভিন্ন সুন্দর ট্যাবলো সামাজিক উন্নয়নের বার্তা বহন করে। এবারও বহু পুজো কমিটি ইতিমধ্যেই সুন্দর ট্যাবলো তৈরি করে ফেলেছে। যে সমস্ত পুজো কমিটি অংশ নিচ্ছে, তাদের সকলেই বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান পেয়েছে। সেরার সেরা, বিশেষ পুরস্কার, জেলার পুরস্কার, সেরা ভাবনা, সেরা প্রতিমা, সেরা পরিবেশবান্ধব, সেরা মণ্ডপ ইত্যাদি পুরস্কারে পুরস্কৃত। সল্টলেক, লেকটাউন, বেলেঘাটা, দমদম থেকে শুরু করে কলকাতার সেরা পুজো কমিটিরাই এই কার্নিভালে যোগ দিচ্ছে। প্রত্যেক পুজো কমিটিকে রেড রোড থেকে গঙ্গার ঘাট পর্যন্ত এসকর্ট করে নিয়ে যাওয়া হবে। নিরাপত্তা দেখভালের জন্য ৮ জন যুগ্ম কমিশনার এবং ১৬ জন ডিসি দায়িত্বে থাকবেন। রেড রোড ও তার আশপাশে আড়াই হাজার পুলিশ মোতায়েন থাকবে। এবছর কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনার পুজো কমিটি অংশ নিচ্ছে কার্নিভালে। কার্নিভাল উপলক্ষে চলবে বিশেষ মেট্রো। এছাড়াও মধ্যরাত পর্যন্ত ১৩টি অতিরিক্ত সরকারি বাস চালানো হবে। কার্নিভালে যে পুজো কমিটিগুলি অংশ নেবে তাদের দুপুর ১২টার মধ্যে রেড রোডে পৌঁছতে হবে। সর্বাধিক ৩টি ট্যাবলো এক একটি পুজোকমিটি আনতে পারবে। শোভাযাত্রায় ১০০ জনের বেশি লোক থাকতে পারবে না। প্রত্যেকটি পুজো কমিটিকে অনুষ্ঠানের জন্য ৩ মিনিট সময় দেওয়া হবে।কার্নিভালে লোক সংস্কৃতির বিভিন্ন দিক তুলে ধরবেন শিল্পীরা। এছাড়াও রাজ্য সরকার যে সমস্ত কল্যাণমূলক প্রকল্প চালু করেছে, সেগুলির ট্যাবলো আনবে কয়েকটি পুজো কমিটি। কার্নিভাল ঘিরে বৃহস্পতিবার মধ্য রাত থেকেই রেড রোড বন্ধ করা হয়েছে। নিরাপত্তা আঁটসাঁট করা হয়েছে। ‌‌শুক্রবার, দক্ষিণেশ্বর থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত যাওয়ার দিনের শেষ মেট্রো পাওয়া যাবে রাত ১০টা ৫৮ মিনিটে। কবি সুভাষ থেকে দক্ষিণেশ্বর পর্যন্ত যাওয়ার শেষ মেট্রো রাত ১০টা। দমদম থেকে কবি সুভাষ যাওয়ার শেষ মেট্রো রাত ১১.‌১০ মিনিটে। কবি সুভাষ থেকে দমদম যাওয়ার শেষ মেট্রো রাত ১১.‌১০ মিনিটে।



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর



রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া