শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Bangladesh Team: রাতে কলকাতায় আসবেন শাকিব, প্র্যাকটিসে গরহাজির লিটন

Sampurna Chakraborty | ২৬ অক্টোবর ২০২৩ ১৪ : ৫৭


আজকাল ওয়েবডেস্ক: লক্ষ্মীপুজোর দিন কলকাতায় বিশ্বকাপের বোধন। ইডেনে প্রথম ম্যাচেই মুখোমুখি বাংলাদেশ-নেদারল্যান্ডস। বৃহস্পতিবার বিকেলে শহরে পৌঁছে গিয়েছে বাংলাদেশ দল। শুক্রবার সন্ধে ছ'টায় ইডেনে প্র্যাকটিসে নেমে পড়ে মুশফিকুর রহিম, নাজমুল হোসেন শান্তরা। দলের সঙ্গে নেই শাকিব আল হাসান। ঢাকায় ছোটবেলার কোচের সঙ্গে অনুশীলনে ব্যস্ত বাংলাদেশের অধিনায়ক। এই নিয়ে আজ তাঁকে ঢাকায় বিক্ষোভের মুখেও পড়তে হয়। কলকাতায় উপস্থিত বাংলাদেশের সাংবাদিকদের অনেকেই মনে করছেন, ফর্মে নেই শাকিব। দলের পারফরম্যান্সও ভাল না। পাঁচটার মধ্যে মাত্র একটি ম্যাচে জিতেছে। বাকি চার ম্যাচে হার। তাই সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নের মুখে পড়তে চাইছেন না। সেই কারণেই বিশ্বকাপের মাঝে আচমকা কয়েকদিনের জন্য দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাতেই অবশ্য দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার কথা শাকিবের। শুক্রবার দুপুর দুটো থেকে পাঁচটা ইডেনে প্রাক ম্যাচ প্রস্তুতি সারবে বাংলাদেশ দল। প্র্যাকটিসে থাকবেন দলনায়ক। তার আগে বৃহস্পতি সন্ধেয় প্রায় দেড় ঘণ্টা ঐচ্ছিক অনুশীলন করলেন তাসকিন, মাহমুদুল্লাহ, মেহেদী হাসানরা।‌ এদিন প্র্যাকটিসে দেখা মেলেনি লিটন দাসের। আইপিএলে কলকাতায় খেলে গিয়েছেন কেকেআরের হয়ে। কিন্তু এদিন দলের সঙ্গে ইডেনে আসেননি বাংলাদেশের উইকেটকিপার ব্যাটার। 



চলতি বিশ্বকাপে জঘন্য পারফরম্যান্স দলের। দশ দলের বিশ্বকাপে ন'নম্বরে ছিল বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার কাছে ইংল্যান্ড হেরে যাওয়ায় একধাপ ওপরে আট নম্বরে উঠে এসেছে। কিন্তু উৎসাহে খামতি নেই সমর্থকদের। আধ ঘন্টার বিমান যাত্রায় পৌঁছে যাওয়া যায় কলকাতায়। ট্রেন, বাসেরও সুবিধা রয়েছে। তাই দলের হতশ্রী পারফরম্যান্স সত্ত্বেও একঝাঁক সমর্থক এসে পৌঁছেছে কলকাতায়। রয়েছে ওপার বাংলার সাংবাদিকদের ভিড়ও। প্রায় ৩৫ জন সাংবাদিক ইতিমধ্যেই কলকাতায় পৌঁছে গিয়েছে। নেদারল্যান্ডস ম্যাচের আগে আরও ১২-১৫ জনের আসার কথা। আচমকাই বাংলাদেশের প্র্যাকটিস চলাকালীন ক্লাব হাউজে দেখা মিলল এক সমর্থকের। যিনি 'টাইগার শোয়েব' নামেই পরিচিত। মাথায় বাঘ, পরনে বাংলাদেশের জার্সি, হাতে পতাকা। সারা বিশ্ব ঘুরে বাংলাদেশের খেলা দেখেন তিনি। ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবোয়েতে গিয়ে প্রিয় দলের খেলা দেখেছেন। প্রতিবেশী দেশে বিশ্বকাপ কি ছাড়া যায়!



একটা সময় নিজের টাকায় গোটা বিশ্ব ঘুরেছেন। তারপর তামিম ইকবাল স্পনসর জোগাড় করে দেন। তাতে অনেকটাই সুরাহা হয় বাংলাদেশ ভক্তের। টাইগার শোয়েব বলেন, 'তামিম ভাই স্পনসর জোগাড় করে দিয়েছে। তাঁরা আমাকে সব জায়গায় পাঠায়। আমি ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবোয়েতে গিয়ে খেলা দেখেছি। তখন নিজের টাকায় যেতাম।' বিশ্বকাপে এখনও উল্লেখযোগ্য কিছু করতে পারেনি বাংলাদেশ। তবুও আশাবাদী টাইগার শোয়েব। দক্ষিণ আফ্রিকায় সিরিজ জয়, এশিয়া কাপে ভারতের বিরুদ্ধে জয় তাতাচ্ছে তাঁকে। টাইগার শোয়েব বলেন, 'বাংলাদেশ দল এখন অনেক পরিণত, শক্তিশালী। দক্ষিণ আফ্রিকার মাঠে সিরিজ জেতা খুবই কঠিন। গুলির মতো বল ছোটে। সেখানে বাউন্সি উইকেটে একদিনের সিরিজ জিতেছি। এশিয়া কাপে ভারতের বিরুদ্ধেও জিতেছি।‌ সুপার লিগে আমরা তিন নম্বরে ছিলাম। যেকোনও দলেরই খারাপ সময় যায়। কিন্তু এতটা খারাপ যাবে আশা করিনি। তবে এবারের বিশ্বকাপে যেভাবে বড় বড় দল হারছে, কিছুই বলা যায় না। কলকাতা আমাদের হোম গ্রাউন্ডের মতো। এখানে নেদারল্যান্ডস, পাকিস্তানের সঙ্গে খেলা। আশা করছি আমরা জিতব।' প্রতিবেশীদের ঘরেই কি ঘুরে দাঁড়াবে বাংলার বাঘরা? 



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর



রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া