রবিবার ১৪ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Missing: হরিহরপাড়ার ‌‘‌নিখোঁজ’‌ ছাত্রকে খুন করা হয়েছে, দাবি পরিবারের

Rajat Bose | ২৪ নভেম্বর ২০২৩ ০৮ : ২২


আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ হরিহরপাড়া থানার চোঁয়া বি বি পাল বিদ্যানিকেতন স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্রকে খুন করে তার দেহ ‘‌গুম’‌ করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ তুলল পরিবারের সদস্যরা। নিখোঁজ ছাত্রের বাবা মিনারুল শেখকে (৪২) কেউ বা কারা ‘‌খুন’‌ করে বৃহস্পতিবার হরিহরপাড়া ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে দেহ ফেলে রেখে পালায়। শুক্রবার দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 
যদিও এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হরিহরপাড়া থানার পুলিশ দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে।  স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চোঁয়া গ্রামের বাসিন্দা দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র শাহিন শেখের সঙ্গে ওই গ্রামেরই বাসিন্দা এবং একই স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। মেয়ের বাড়ির লোকেরা এই সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় ১৪ অক্টোবর শাহিন ওই মেয়েটিকে নিয়ে এলাকা থেকে পালায়। 
এরপর মেয়ের বাবা পটল খান হরিহরপাড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। যার ভিত্তিতে শাহিনের মা এবং এক কাকাকে পুলিশ আটক করে। পরে তার মাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বর্তমানে তিনি জামিনে রয়েছেন।  ঘটনার সময় শাহিনের বাবা পেশায় গাড়ি চালক মিনারুল শেখ নিজের কর্মস্থল পুনেতে ছিলেন। এই ঘটনার মীমাংসা করার জন্য কয়েকদিন আগে তাঁকে পুণে থেকে ডেকে পাঠানো হয়। 
মিনারুলের এক ভাই তাজমুল হক শেখ জানান, ‘‌পটল নিজের মেয়ের সন্ধান পাওয়ার জন্য আমার ভাইকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে। এরপর তাঁর দেহ হরিহরপাড়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সামনে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।’‌ 
তিনি বলেন, ‘‌বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পেরেছি ইতিমধ্যেই পটলের মেয়ে এবং আমার ভাইপোকে তারা খুঁজে পেয়েছে। মেয়েটিকে তারা গোপন জায়গায় রেখে দিয়েছে। ভাইপো শাহিন শেখকে খুন করার ঘটনাটি মিনারুল দেখে ফেলায় তাকেও পটল এবং তার সঙ্গীরা খুন করেছে বলে আমাদের সন্দেহ।’‌ তাজমুলের অভিযোগ, পটল এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় পুলিশ তাদের অভিযোগ শুনছে না। যদিও পুলিশ জানিয়েছে, শাহিন বা ওই মেয়েটি এলাকায় ফিরে এসেছে বলে কোনও খবর তাদের কাছে নেই। 



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর



রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া