বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

MAMATA : দাবি, কেন্দ্র থেকে রাজ্যের বকেয়া আদায়, লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু তৃণমূলের

Sumit | ২৩ নভেম্বর ২০২৩ ১১ : ৩৭


আজকাল ওয়েবডেস্ক: একদিকে যেমন পার্থ,বালুদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা অন্যদিকে বকেয়া নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক যুদ্ধের প্রস্তুতি। বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোরে দলের মেগাসভা থেকে কার্যত লোকসভা নির্বাচনের ঢাক বাজিয়ে দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। প্রস্তুতি হিসেবে যেমন নির্দেশ দিলেন রাজ্যের প্রতিটি বুথে আগামী ২ এবং ৩ ডিসেম্বর রাজ্যের বকেয়ার দাবিতে মিছিল করতে সেইসঙ্গে জানিয়ে দিলেন ডিসেম্বরে দিল্লি অভিযানে নিজের সামিল হওয়ার কথা। একইসঙ্গে দলীয় বিধায়কদের প্রতি তাঁর নির্দেশ আগামী ২৮,২৯ ও ৩০ নভেম্বর বিধানসভায় বাবাসাহেব অম্বেদকরের মূর্তির সামনে ১০০ দিনের কাজসহ রাজ্যের অন্যান্য প্রকল্পে কেন্দ্র থেকে পাওনা টাকা আদায়ের দাবিতে দুপুর ৩টে থেকে ৫টা পর্যন্ত দু"ঘন্টা ধর্না দেওয়ার‌।
এদিন মমতার মুখে আগাগোড়াই ছিল সিপিএম এবং বিজেপির সমালোচনা। দুর্নীতির অভিযোগে এই মুহূর্তে জেলবন্দি পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকসহ জেলে আছেন অনুব্রত মন্ডল ও মানিক ভট্টাচার্য। মমতার কথায়, "আমি বিশ্বাস করি না বালুরা চোর।" এরপরেই বিরোধীদের প্রতি হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, "ওরা চারজনকে জেলে রাখলে ওদের বিরুদ্ধে যে কেস আছে সেই কেসে আমি আটজনকে জেলে ভরব।"
একইসঙ্গে সিপিএমের প্রতি অভিযোগ করে তিনি বলেন, জয়নগরে তারা পরপর তিন চারটে খুন করেছে। শূন্য থেকে শূন্যে চলে গেছে সিপিএম। মুখে শুধুই বড় বড় কথা। পাশাপাশি ভাঙরের বিধায়ক নৌশাদ সিদ্দিকীর নাম না করে তাঁর অভিযোগ, বিজেপির টাকায় পুষ্ট হয়ে তিনি এবং তাঁর দল সংখ্যালঘুদের ভুল বোঝাচ্ছেন।
এর আগেও তৃণমূলের তরফে অভিযোগ করে বলা হয়েছে কেন্দ্রীয় বঞ্চনার জন্য রাজ্যে আটকে রয়েছে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ। বঞ্চনা সত্ত্বেও তাঁর দল যে গ্রামীণ উন্নয়নে সদর্থক ভূমিকা পালন করবে এদিন সে বিষয়ে জেলার সাংদদের নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন তাঁদের এলাকায় অন্য কিছু করার আগে যেন সাংসদ কোটার টাকায় রাস্তার কাজ করা হয়।
ইতিমধ্যেই দিল্লি রাজনীতি সরগরম হয়েছে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রকে নিয়ে। এদিন মহুয়ার পাশে দাঁড়িয়ে মমতা বলেন, "ওদের পরিকল্পনা মহুয়াকে তাড়িয়ে দেওয়া।"
আগামীদিনে দলের শাখা সংগঠন "বঙ্গ জননী" মিশে যাচ্ছে মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে। এদিনের সভা থেকে সেই ঘোষণা করে মমতা বলেন, মালা রায় চেয়ারম্যান হবেন এবং চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য হবেন সভাপতি। সেই সঙ্গে তাঁর নির্দেশ সুব্রত বক্সির থেকে অনুমতি নিয়ে দলে যারা যোগ দিতে চান তাদেরকে দলে নিয়ে নিন।
এর আগে বকেয়ার দাবিতে দিল্লি অভিযান করেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক ব্যানার্জি। সেই দাবিতে যে দিল্লিতে ফের "অভিযান" করা হবে সে বিষয়ে এদিন মমতা বলেন, "আমি ডিসেম্বরে লোকসভার অধিবেশন চলাকালীন দিল্লি যাব। সমস্ত সাংসদদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার সময় চাইব। যদি সময় না দেন তবে রাস্তাই আমাদের রাস্তা দেখাবে।"



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া