রোজ একটু একটু করে বদলাতে হয়। সময়ের হাত ধরতে। কিন্তু এত বদলে, একটা সম্পর্ক কিছুতেই বদলাতে ইচ্ছে করে না। একটা সম্পর্ক রক্তের না হয়েও, বড্ড কাছের হয় মনের। ‘‌বন্ধু’‌। সেই ‘‌বন্ধু’‌ আর ‘‌বন্ধুত্ব’‌ নিয়েই কেটে গেল সন্ধে। ইনোভেটিভ কমিউনিকেশনস–‌এর উদ্যোগে আইসিসিআরের সত্যজিৎ প্রেক্ষাগৃহে। সন্ধের বিষয় নির্বাচনে ফেলে আসা সম্পর্কও কুড়িয়ে পেয়েছিল তার নিজের জায়গা। বন্ধুত্বের বিস্তৃত উঠোনকে ধরার চেষ্টা করেন বাচিকশিল্পী সাম্য কার্ফা। স্ক্রিপের মধ্যে দিয়ে। রবীন্দ্রনাথের বীরপুরুষ ফিরিয়ে এনেছিল যেন ছোটবেলা!‌ ঋতুপর্ণ ঘোষের ফার্স্ট পার্সনের একটা অংশও অদ্ভুতভাবে মন ছুঁয়ে গেল। অ্যাসিড–‌আক্রান্ত মনীষাকে নিয়ে লেখা তিয়াসা মুখোপাধ্যায়ের গদ্য, সন্ধের ভাললাগা বাড়িয়ে দিয়েছিল আরও। সঙ্গে ছিল অনিন্দিতা মৈত্রের গান। শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের পাশাপাশি, সাম্যর সঙ্গে শ্রুতি অভিনয়েও পারদর্শিতা দেখালেন শৌনক চট্টোপাধ্যায়। সন্ধের রঙ আরও গভীর হয়েছিল অর্কদেব ভট্টাচার্য ও মৃত্তিকা ভট্টাচার্যের নাচে। সত্যি সত্যি এক সন্ধেয় এত রঙ অনেকদিন দেখেনি শহর!‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top