আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ডরাই না উর্দিকেও। হরিয়ানায় বোধ হয় এমনই প্রমাণ করতে চেয়েছিল দুর্বিত্তরা। তাই মহিলা থানাতে ঢুকেই মহিলা হেড কনস্টেবলকে গণধর্ষণ করে তারা। অকুস্থল সেই হরিয়ানা। ছুরি দেখিয়ে মহিলা হেড কনস্টেবলকে দুই দুষ্কৃতী ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। কাউকে এই বিষয়ে জানালে বা অভিযোগ দায়ের করলে তাঁকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছিল তারা। 
নির্যাতিতা পুলিস কনস্টেবলের অভিযোগের ভিত্তিতে ধর্ষণের মামলা দায়ের করা হয়েছে। যদিও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। নির্যাতিতার মেডিকেল পরীক্ষায় ধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে। স্টেশন ইনচার্জ কমলা দেবী জানিয়েছেন, নির্যাতিতা তাঁর বয়ানে জানিয়েছে অলভলপুরের বাসিন্দা যোগেন্দ্র মিন্টো গত চার বছর ধরে তাঁকে ধর্ষণ করেছে। কাউকে জানালে বার বার প্রাণে মারার হুমকি দিয়েছে। এমনকী তাঁর পরিবারের লোকেদেরও হেনস্থা করা শুরু করেছিল সে। ২০১৪ সালে মহেন্দ্রগড়ে নির্যাতিতা কনস্টেবল যখন কর্তব্যরত ছিলেন তখন যোগেন্দ্রর সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল। 
পালওয়ালে নির্যাতিতা যখন বদলি হয়ে চলে আসেন, যোগেন্দ্ররের দাদা তোশরাজ তাঁকে ছুরি দেখিয়ে মহিলা থানায় ধর্ষণ করে। তারপরেই অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা। 

জনপ্রিয়

Back To Top