আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দেশের ইতিহাসে এই প্রথম পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে ৩২৪ ধারা প্রয়োগ করা হয়েছে। 
স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্যের অপসারণ এবং প্রচারের সময়সীমা কমানোর সিদ্ধান্তে কমিশনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জি। কমিশনের এই সিদ্ধান্ত পক্ষপাত দুষ্ট বলে সাংবাদিক বৈঠকে অভিযোগ করেছেন তিনি। অমিত শাহ এবং নরেন্দ্র মোদির নির্দেশেই নির্বাচন কমিশন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে দাবি করেছেন মমতা। 
মঙ্গলবার অমিত শাহের মিছিলে গণ্ডগোল করেছে বাইরে থেকে আসা লোকেরা। বিজেপি গণ্ডগোল বাঁধানোর উদ্দেশ্যেই এঁদের নিয়ে এসেছিল। সেখানে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার দোহাই দিয়ে প্রচারের সময়সীমা কমিয়ে দেওয়া হচ্ছে। অমিত শাহকে শাস্তি না দিয়ে পুরস্কৃত করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন। 
সংবিধানের ৩২৪ ধারা প্রয়োগ করে বাংলাকে অপমান করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। 
মোদি ভয় পাচ্ছেন বলেই কমিশনকে দিয়ে এইসব কাজ করাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন মমতা। এর জবাব বাংলার মানুষ তাঁকে ভোট বাক্সে দেবে। যাঁদের নির্বাচন কমিশন বিশেষ পর্যবেক্ষক হিসেবে নিয়োগ করেছে তাঁরা অবসরপ্রাপ্ত কর্মী। বেআইনি ভাবে এই বিশেষ পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে। 
রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব কমিশনকে চিঠি দিয়ে রাজ্য পুলিসকে সঙ্গে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে কাজ করার কথা বলেছিলেন। সেই চিঠি লেখার অপরাধেই তাঁকে সরানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মমতা
প্রচারের সময় কমানোর পিছনেও বিজেপির চক্রান্ত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। মমতা দাবি কাল মোদির দুটি প্রচারসভা রয়েছে রাজ্যে। সেকারণেই রাত ১০টার পর প্রচার শেষ করার নিদান দিয়েছে কমিশন। কিন্তু এই নির্দেশ দমিয়ে রাখতে পারবে না তাঁকে। আগামী তিনদিনের সব প্রচার কর্মসূচি তিনি এগিয়ে নিয়েছেন। কালকেই মথুরাপুরে মোদির সভার আগেই সভা করবেন তিনি। ডায়মন্ড হারবারে সভা করার পর দক্ষিণ কলকাতাতেও মিছিল করবেন মমতা। অর্থাৎ গত তিনদিনের সব কর্মসূচিই তিনি কাল রাত ১০টার মধ্যে করে ফেলবেন বলে জানিয়েছেন মমতা। 
কমিশনের এই পক্ষপাত দুষ্ট সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে আগামিকাল রাজ্যে কালো পতাকা নিয়ে  মোমবাতি মিছিল করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। 

 

 

ছবি: এএনআই

জনপ্রিয়

Back To Top