আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ১৪ নভেম্বর বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস। এছাড়া পণ্ডিত জওহরলাল নেহরুর জন্মদিন তথা শিশুদিবস। কিন্তু এসব বাদ দিয়ে বাঙালি মেতেছে ‘‌রসগোল্লা দিবস’‌। কারণ দু’‌বছর আগে এই দিনেই রসগোল্লার জিআই ট্যাগ পেয়েছিল বাংলা। ‌আর তাই রসগোল্লা খাওয়া এবং খাওয়ানোতে মেতেছে বাংলা এবং বাঙালি। জেলায় জেলায় মিষ্টান্ন ব্যবসায়ীরা নিজেরাই রসগোল্লা খাওয়াচ্ছেন স্থানীয়দের। বিভিন্ন জায়গায় অনুষ্ঠানও হচ্ছে। কলকাতার বুকেও একাধিক জায়গায় রসগোল্লা দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এমনই একটি অনুষ্ঠানে এসেছিলেন রাজ্যের নারী ও শিশুকল্যাণমন্ত্রী শশী পাঁজা। তিনি বলেন, ‘‌বাংলার রসগোল্লা ঘোষিত। শুধু পশ্চিমবঙ্গের মানুষ নন, সারা দেশ জানে রসগোল্লার আবিষ্কর্তা নবীনচন্দ্র দাস। ওডিশার এই লড়াই কাম্য ছিল না। ওরা আমাদের পাশের রাজ্য। আমরা ভাইবোনের মতো। ওডিশাবাসীও রসগোল্লা খেয়ে দিনটি উদযাপন করুন।’‌ পশ্চিমবঙ্গ মিষ্টান্ন ব্যবসায়ী সমিতি এই দিনটি উদযাপন করে বাগবাজারের গৌরীমাতা উদ্যানে। ওই উদ্যানেই স্থাপিত হল বাংলার রসগোল্লার আবিষ্কারক নবীনচন্দ্র দাসের মূর্তিও। এদিন সকালেই টুইট করে রাজ্যবাসীকে রসগোল্লা দিবস ‌এবং বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবসের শুভেচ্ছা জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। লেখেন, ‘‌২০১৭ সালে আজকের দিনেই জিআই স্বীকৃতি পেয়েছিল বাংলার রসগোল্লা। এই সুমধুর দিনটিতে সকলকে জানাই শুভেচ্ছা। পাশাপাশি, আজ বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস। নিজের স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখুন। স্বাস্থ্যকর খাবার খান। নিয়মিত ব্যায়াম করুন।’‌
এদিকে আবার বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে শহরের বুকে এদিন একাধিক মিছিল এবং আলোচনা সভারও য়োজন করা হয়েছে। অর্থাৎ একই দিনে ডায়াবেটিস এবং রসগোল্লা দিবস পালিত হল কলকাতায়। যা হয়ত বিশ্বে আর কোথাও হয় না।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top