আজকালের প্রতিবেদন: ‌কনকনে উত্তুরে হাওয়ায় পারদ নামল হু হু করে। কাঁপল রাজ্য। ভোরের দিকে প্রচণ্ড ঠান্ডায় জবুথবু পরিস্থিতি তৈরি হল। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, আজ, রবিবারও গোটা রাজ্য জুড়েই কনকনে পরিস্থিতি থাকবে। তবে সোমবার বেলার পর থেকে তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে থাকবে। মঙ্গলবার রাজ্যের পশ্চিমের জেলাগুলিতে বৃষ্টি হবে। বুধবার, সরস্বতী পুজোর দিন হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে গোটা রাজ্য জুড়ে। বৃহস্পতিবারও কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত হালকা বৃষ্টি ঝরতে পারে।
কুয়াশা, হালকা বৃষ্টির কারণে বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা বেশ খানিকটা বেড়ে গিয়েছিল। মেঘ, কুয়াশা কাটতেই শুক্রবার কমতে শুরু করে তাপমাত্রা। রাতেই তৈরি হয় কনকনে পরিস্থিতি। শনিবার ভোরে বহু জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রির নিচে নেমে যায়। কয়েকটি জেলায় আবার ৬ থেকে ৭ ডিগ্রির আশপাশে ঘোরাফেরা করেছে। রবিবারও এরকম কনকনে ভাব থাকবে। কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশপাশে থাকতে পারে, সোমবার তা একটু বেড়ে ১৩–র আশপাশে চলে যেতে পারে। তবে মঙ্গলবার থেকে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেশ খানিকটাই বাড়বে।
আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, ফের দানা বেঁধেছে পশ্চিমি ঝঞ্ঝা। এর পাশাপাশি বঙ্গোপসাগরে গড়ে উঠেছে একটি বিপরীত ঘূর্ণাবর্ত। এর প্রভাবে সোমবার থেকে ধীরে ধীরে গাঙ্গেয় দক্ষিণবঙ্গে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বাড়তে শুরু করবে। যা টেনে আনবে মেঘ। সেই মেঘেই মঙ্গলবার থেকে পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম, দুই বর্ধমান, ঝাড়খণ্ড, পশ্চিম মেদিনীপুরে বৃষ্টি ঝরতে পারে। বুধবার, সরস্বতী পুজোর দিন বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা বাড়বে। দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গেও হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে। মেঘ বৃষ্টির কারণে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেশ খানিকটা বেড়ে যাবে। কলকাতায় তা ঘোরাফেরা করতে পারে ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশপাশে। তবে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বেশ খানিকটা কমবে।
মেঘ, বৃষ্টির পর কি এবারের মতো শীত বিদায় নেবে?‌ আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, সেটা নির্ভর করছে তারপর উত্তুরে হাওয়ার গতি কেমন থাকছে তার ওপর। সাধারণত, ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে তাপমাত্রা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। তবে ভোরের দিকে হালকা শীতের আমেজ থাকে। বৃষ্টির পর হাওয়া দিলে কিন্তু সেই আমেজ কিছুটা তীব্র হতে পারে।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top