নিরুপম সাহা,‌বনগাঁ: মমতা ব্যানার্জি মানুষের উন্নয়নে পাশে আছেন। তাই তিনি কারণে–অকারণে বন্‌ধ ডেকে স্বাভাবিক জনজীবন বিপর্যস্ত করার বিরোধী। তাই সাধারণ মানুষও তঁার পাশে আছেন। শুক্রবার বনগঁা শহরে বিজেপি–র ডাকা বন্‌ধকে ব্যর্থ করেছেন সেই সাধারণ মানুষই। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা বিজেপি–র ডাকা এদিন ১০ ঘণ্টা বনগঁা শহর বন্‌ধের প্রেক্ষিতে এমনই বলছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। তঁাদের দাবি, মমতা ব্যানার্জির ওপর ভরসা করে এদিন বনগঁার ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ বিজেপির ডাকা বন্‌ধকে উপেক্ষা করে সাধারণ জনজীবন স্বাভাবিক রেখেছেন। তাই বনগঁার সর্বস্তরের মানুষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। এভাবেই বিজেপি–র বিরুদ্ধে একসঙ্গে লড়াইয়ের ডাক দিয়েছেন জেলার নেতারা। যদিও বন্‌ধ সফল বলে দাবি করে বিজেপির বারাসত সাংগঠনিক জেলার সহ–সভাপতি দেবদাস মণ্ডল অভিযোগ করেন, ‘‌তৃণমূলের পক্ষ থেকে দোকানদারদের ফোন করে হুমকি দিয়ে দোকান খোলানোর চেষ্টা করা হয়।’‌ অভিযোগ মিথ্যা বলে বনগঁা শহর‌ তৃণমূলের সভাপতি শঙ্কর আঢ্য জানান, মমতা ব্যানার্জির উন্নয়নের প্রতি আস্থা রেখে এদিন সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে ব্যবসায়ীরা বন্‌ধ ব্যর্থ করে জনজীবন স্বাভাবিক রেখেছেন। এর পর ভবিষ্যতে ফের বন্‌ধ ডাকার আগে বিজেপি যেন কয়েকবার চিন্তা করে। 
তৃণমূল পরিচালিত বনগঁা পুরসভার ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের এক সময়ের তৃণমূল কাউন্সিলর শুভেন্দু মিস্ত্রি তঁার এলাকার নাগরিকদের পরিষেবা দেওয়ার জন্য একটি কার্যালয় তৈরি করেন। মাসকয়েক আগে শুভেন্দু বিজেপিতে যোগ দেন। তৃণমূলের কার্যালয়ের রং বদলে বিজেপির কার্যালয়ে পরিণত করেন তিনি। তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, তৃণমূলের কাউন্সিলর থাকাকালীন দলের নেতা, কর্মীদের সহযোগিতায় নির্মিত ওই কার্যালয়টি তৃণমূলকে ফিরিয়ে দেওয়া হোক। আর এ নিয়েই শুরু হয় বিরোধ। পরিস্থিতি সামলাতে প্রশাসন হস্তক্ষেপ করে। যেহেতু নির্মিত কার্যালয়টি রেলের জায়গায়, তাই আরপিএফ ওই কার্যালয়ে তালা লাগিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। তৃণমূল নেতৃত্বের অভিযোগ, এরপর বিজেপি জিআরপির ওপর চাপ সৃষ্টি করে। জিআরপি তখন বনগঁা পুলিশের সাহায্য চায়। ৫ নভেম্বর সন্ধেয় বনগঁা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে গোলমালের সৃষ্টি হয়। বিজেপির অভিযোগ, পুলিশ লাঠি চালালে তাদের ২ জন কর্মী জখম হন। এই ঘটনার বিরুদ্ধে শুক্রবার ১০ ঘণ্টা বনগঁা শহর বন্‌ধের ডাক দেয় বিজেপি। এদিন বনগঁা পুরসভার প্রধান শঙ্কর আঢ্যর নেতৃত্বে দলের অন্যান্য কাউন্সিলর, নেতা, কর্মীরা মিছিল করে ব্যবসায়ীদের নির্ভয়ে দোকান খোলার কথা বলেন। এ ব্যাপারে প্রশাসন সর্বতোভাবে সহযোগিতা করবে বলেও আশ্বস্ত করা হয়।      

বিজেপির ডাকা বনগাঁ বন্‌ধের বিরুদ্ধে তৃণমূলের মিছিল। ছবি: প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top