গৌতম চক্রবর্তী: বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার লোকসভা কেন্দ্রগুলির তৃণমূল প্রার্থীদের নিয়ে বিষ্ণুপুরের আমতলায় এক বৈঠকে করলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জি। এদিন বৈঠকে জেলার ৪ লোকসভার প্রার্থী মিমি চক্রবর্তী, চৌধুরীমোহন জাটুয়া–সহ প্রতিমা মণ্ডল নস্কর উপস্থিত ছিলেন। এদিন প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারের কৌশল ও পরামর্শ দেন অভিষেক ব্যানার্জি ও জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি শুভাশিস চক্রবর্তী। এদিন ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী অভিষেক ব্যানার্জি বলেন, ‘‌এই রাজ্যের মানুষ মমতা ব্যানার্জিকে দেখে ভোট দেন। যে–ই প্রার্থী হোন না কেন। মমতা ব্যানার্জির ছবি আর প্রতীক দেখেই ভোট দেবেন মানুষ। সৌমিত্র খাঁ, অনুপম টিকিটের লোভে চলে গেছে। যে যাওয়ার যাবে। যে থাকার থাকবে। অর্জুন সিংয়ের ক্ষমতা থাকলে ভাটপাড়া পুরসভায় পদত্যাগ করে ভোট করিয়ে দেখাক। ২০১৪ সালে ভাটপাড়ায় ৫ হাজার ভোটে পিছিয়েও দীনেশ ত্রিবেদী জিতেছিলেন। এবারও দীনেশবাবুর ওপর দলনেত্রী আস্থা রেখেছেন। তিনি জিতবেনই।’‌
অন্যদিকে, বিজেপি পশ্চিমবঙ্গের সব বুথকে অতিস্পর্শকাতর দাবি করায় অভিষেক বলেন, ‘‌ওরা অজুহাত দিচ্ছে হারার আগেই। ভয় পেয়ে গেছে। তৃণমূল ৪২টি আসনেই জিতবে। ওরা কেন্দ্রীয় বাহিনী, অবজার্ভার, ইলেকশন কমিশন— যত কিছু দিয়ে ভোট করাক, কোনও সুবিধা হবে না। আমরাই জিতব। মহেশতলা উপনির্বাচনে তো ভোট করাল, কী হল ফলাফল?‌ আমাদের একটাই মুখ— তা হলেন মমতা ব্যানার্জি।‌‌’‌

বৈঠকে সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জি, জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শুভাশিস চক্রবর্তী, মিমি চক্রবর্তী–সহ অন্যান্য প্রার্থীরা। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top