যজ্ঞেশ্বর জানা, তমলুক: এক মহিলা আইনজীবীর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় জোরাল হচ্ছে খুনের অভিযোগ। ঘটনা তমলুকের কুলবেড়িয়ার। সরকারি কর্মচারী স্বামীর বিরুদ্ধেই উঠছে খুনের অভিযোগ। মৃতের নাম প্রিয়াঙ্কা কান্ডারী সরকার (২৮)। বুধবার সকালে ঘরের মেঝেতে উদ্ধার হয় তঁার মৃতদেহ। ঘটনার সময় ঘরেই ছিলেন তঁার স্বামী বিমান সরকার। প্রিয়াঙ্কা আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি তঁার। কিন্তু আত্মহত্যার তত্ত্ব মানতে নারাজ স্থানীয়রা। তঁাদের দাবি, ঘটনা খুন। আর এই খুন বিমানই করেছেন বলে অভিযোগ তঁাদের। 
তমলুক থানার পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধারে এসে ‘‌মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’‌ লেখা একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে। তবে সেই হাতের লেখা প্রিয়াঙ্কার কিনা, সে বিষয়ে নিশ্চিত নয় পুলিশ। তমলুক থানার ওসি কৃষ্ণেন্দু প্রধান বলেন, ‘‌এই ঘটনায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করা হয়েছে। আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়েছে মৃতের স্বামীকে।’‌ তমলুক আদালতের আইনজীবী ছিলেন প্রিয়াঙ্কা। তঁার স্বামী বিমান তমলুকের পদুমপুর ২ পঞ্চায়েতের কর্মী। কর্মসূত্রে ১০ মাস আগে তমলুকে আসা মুর্শিদাবাদের জলঙ্গির বাসিন্দা এই দম্পতির। কুলবেড়িয়ার সুবোধচন্দ্র শেঠের বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে থাকতেন তঁারা। বুধবার সকাল ৮টা নাগাদ তঁাদের ঘর থেকে বিকট শব্দ শুনে ছুটে আসেন বাড়ির মালিক সুবোধবাবু। তিনি বলেন, ‘‌এর পর দীর্ঘক্ষণ ঘরের ভেতর থেকে দু’‌জনের কারও কোনও সাড়া শব্দ না পেয়ে আমি ডাকাডাকি শুরু করি। তখনই বিমান ঘর থেকে বেরিয়ে বলেন, ‘‌প্রিয়াঙ্কা গলায় ওড়নার ফঁাস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।’‌ যদিও সে সময় মৃতদেহ মেঝেতেই শোয়ানো ছিল। এর পরই আমি থানায় ফোন করি।’‌ জানা গেছে, এই দম্পতির মধ্যে প্রায়ই অশান্তি হত। কয়েকদিন আগেও চরম পর্যায়ে পৌঁছেছিল সেই অশান্তি। বোঝাপড়া করেছিলেন বাড়ির মালিক। তার পর এই ঘটনা।
স্থানীয় বাসিন্দা নীলুপ্রসাদ পাড়ুই অভিযোগ করে বলেন, ‘‌সকালে আমরা ক্লাবে ছিলাম। বাড়ির মালিক আমাদের বিষয়টি জানান। ঘরের দরজা বন্ধ ছিল তখন। জানালা দিয়ে দেখতে পাই মেঝেতে মৃতদেহ পড়ে রয়েছে। আমাদের অনুমান, মহিলা আইনজীবীকে খুনই করেছে তার স্বামী।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top