আজকালের প্রতিবেদন: ঘূর্ণিঝড় আমফানে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষয়ক্ষতি ও সাম্প্রতিক পরিস্থিতি জানতে চেয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে ফোন করলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কী পরিস্থিতি জানতে চেয়ে ফোন করেছিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েক এবং কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন খোঁজ নিয়েছেন, সমবেদনা জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার বেলা সওয়া এগারোটা নাগাদ ফোন করেন মুখ্যমন্ত্রীকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানিয়েছেন, ‘‌সুপার সাইক্লোন আমফানের কারণে পশ্চিমবঙ্গের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সে বিষয়ে খোঁজ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সাইক্লোনে জীবন ও সম্পত্তির ক্ষতি হওয়ায় মমতা ব্যানার্জিকে সমবেদনা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন তাঁরা যেন খুব দ্রুত এই ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারেন।’‌ এই দুর্যোগে সহমর্মিতা জানানোয় মমতা ব্যানার্জি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বলে জানান ইহসানুল করিম। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব বলেছেন, আমফান রাতের দিকে বাংলাদেশে ঢোকে এবং বৃহস্পতিবার সকালে নিম্নচাপে পরিণত হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি জানিয়েছেন, আমফানের প্রকোপে পশ্চিমবঙ্গের বেশি ক্ষতি হয়েছে। রাজ্যে অন্তত ৭২ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘‌মাননীয় রাষ্ট্রপতি ফোন করেছিলেন। সমস্ত বিষয় তাঁকে জানানো হয়েছে। সব শুনে ওঁর চোখে জল এসে যায়।’‌ ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েক বলেছেন, ‘‌ওডিশা সরকার সবসময় পাশে আছে। আগেও ছিল। ফণীর সময়ও বাংলা আমাদের পাশে ছিল।’‌ কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির উদ্দেশে টুইট করে বলেছেন, ‘‌ঘূর্ণিঝড়ে প্রভূত ক্ষতির কথা শুনে আমরা ভীষণ মর্মাহত। আমরা আপনাকে জানাতে চাই বাংলার মানুষের পাশে কেরল সবসময় আছে।’‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top