যজ্ঞেশ্বর জানা, নন্দীগ্রাম: সরকারি ঘোষণা ছাড়াও কৃষি, উদ্যানপালন ও প্রাণীসম্পদ এই তিন ক্ষেত্রে আমফান ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের সমবায় ব্যাঙ্কের মাধ্যমে সুবিধা প্রদানের কাজ শুরু করলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। লকডাউন এবং আমফানের ধাক্কায় এবার আর্থিক সমস্যায় পূর্ব মেদিনীপুরের চাষিরা। তাঁদের পাশে দাঁড়াতে কন্টাই সমবায় ব্যাঙ্ক, বিদ্যাসাগর কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাঙ্ক এবং কাঁথি কার্ড ব্যাঙ্কে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সম্প্রতি। এই তিন ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন মন্ত্রী শুভেন্দু। তাঁর উদ্যোগেই এই তিন সমবায় বেশ কিছু মানবিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। 
২০১৯–২০ সালে পানের বরোজের জন্য যাঁরা ঋণ নিয়েছিলেন আমফানে ক্ষয়ক্ষতির জন্য তাঁদের কাঁথি কার্ড ব্যাঙ্ক ‘‌সদস্য কল্যাণ তহবিল’‌ থেকে ১০ হাজার ও তমলুক কৃষি ও গ্রামোন্নয়ন সমবায় ব্যাঙ্ক থেকে ৫ হাজার টাকা করে অর্থসাহায্যের কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। মঙ্গলবার এই দুই ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে খেজুরি ও নন্দীগ্রামে পৃথক দুই কর্মসূচিতে পানচাষিদের হাতে আর্থিক ক্ষতিপূরণ তুলে দেন শুভেন্দু। কাঁথি কার্ড ব্যাঙ্কের উদ্যোগে পানের বরোজ পুনর্গঠনের জন্য আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয় খেজুরি এলাকার পানচাষিদের। তমলুক কৃষি ও গ্রামোন্নয়ন সমবায় ব্যাঙ্ক উদ্যোগে ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হয় নন্দীগ্রাম ১ ও ২ ব্লক এলাকার পানচাষিদের। 

জনপ্রিয়

Back To Top