গৌতম চক্রবর্তী- আর ক’‌দিন পরেই প্রেমিকার সঙ্গে আইনানুগ বিয়ের কথা চলছিল কলেজ ছাত্রের। কিন্তু তার আগেই বিষক্রিয়ায় তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ। কী কারণে ওই ছাত্র কীটনাশক খেয়ে আত্মঘাতী হলেন, তা নিয়ে রহস্য দানা বেঁধেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বিষ্ণুপুর থানার পুলিস। বিষ্ণুপুরের পৈলানের রঘুদেবপুরের ঘটনা। রবিবার চিকিৎসা চলাকালীন মৃত্যু হয়েছে সরশুনা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র শুভজিৎ সাহার (২০)।
চলতি বৈশাখ মাসের কয়েক দিনের মধ্যেই প্রেমিকার সঙ্গে শুভজিতের আইনমতে বিয়ে ঠিকঠাক হয়েছিল। তার আগে শুক্রবার বাড়ির কাছেই মুখে গ্যাঁজলা ওঠা অবস্থায় তাঁকে পাওয়া যায়। সঙ্গে সঙ্গে পরিবারের লোকজন শুভজিৎকে ঠাকুরপুকুরের একটি নার্সিংহোমে নিয়ে গিয়েছিলেন। সেখানে চিকিৎসা চলছিল। অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাতেই তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে। সেখানেই রবিবার মৃত্যু হয়েছে। কী কারণে শুভজিতের আত্মহত্যা, বুঝে উঠতে পারছেন না পরিবার ও প্রতিবেশীরা। স্থানীয়দের অভিযোগ, পরিবারের কাছে শুভজিৎ ৩ হাজার টাকা চেয়েছিলেন। সেই টাকা না পেয়েই অভিমানে তিনি কীটনাশক খেয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিস।

জনপ্রিয়

Back To Top