আজকালের প্রতিবেদন: রাজ্যে গত বছর পর্যটক বেড়েছে ২১.৭৫ শতাংশ। রাজ্য সরকার সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যে আরও পর্যটক বাড়াতে চায়। পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেবের অনুপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার এই তথ্য জানালেন যুগ্ম পর্যটন সচিব শান্তা প্রধান। বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (বিএনসিসিআই) এদিন কলকাতায় তাঁদের সদর দপ্তরে আয়োজন করেছিল পর্যটন নিয়ে বিশেষ আলোচনার। বিএনসিসিআই সভাপতি ড.‌ অর্পণ মিত্রের সভাপতিত্বে অংশ নেন কলকাতায় চীনা কনসাল জেনারেল ঝা লিইউ, থাই কনসাল জেনারেল স্যুইয়া সান্টিপিটাকস, বাংলাদেশের প্লে মিউজিকের এমডি সানম সুমি, ঋত্বিক দাশ প্রমুখ। আলোচনার বিষয় ছিল, ‘এক্সপিরিয়েন্স বেঙ্গল: দ্য সুইটেস্ট পার্ট অফ ইন্ডিয়া।’ বাংলা যে ভারতের সবচেয়ে মনোরম জায়গা, বক্তারা সকলেই ছিলেন একমত। শান্তা প্রধান তুলে ধরেন পর্যটন বিকাশে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন কর্মসূচির কথা। বলেন, দুর্গাপুজোকে দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ  উৎসবের চেহারা দিতে রাজ্য সরকার বদ্ধপরিকর। সেইসঙ্গে তাঁর আশা, এবারও রেড রোড কার্নিভালে বহু বিদেশি পর্যটক উপস্থিত হবেন। পর্যটনের বিকাশের পাশাপাশি কর্মসংস্থানের কথা মাখায় রেখে তিনি আতিথেয়তা শিল্পে যুবকদের আরও বেশি করে অংশগ্রহণের কথা বলেন। জানান, পর্যটন আবাসগুলিকে থ্রি স্টার পর্যায়ে উন্নীত করার কাজ চলছে। জলপাইগুড়িতে ট্যুরিজম হাব ভোরের আলো–‌র কথাও বলেন। জানান, দার্জিলিং বা দীঘার পাশাপাশি অন্যান্য ট্যুরিস্ট স্পটকেও আকর্ষণীয় করতে চাইছে সরকার। তাই নিয়মিত আয়োজন করা হচ্ছে পর্যটন উৎসবেরও। রাজ্যের পর্যটনের বিকাশে প্রচারের পাশাপাশি পরিকাঠামো উন্নয়নেও যে রাজ্য সরকার বাড়তি গুরুত্ব দিচ্ছে সেকথাও স্মরণ করিয়ে দেন। আলোচনার শুরুতেই ড.‌ অর্পণ মিত্র সার্বিক উন্নয়নে পর্যটনশিল্পের বিকাশের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন। বাংলার পর্যটনশিল্পের ভূয়সী প্রশংসা করেন থাই কনসাল জেনারেল। জানান, গত বছর দু হাজার পর্যটক ব্যাঙ্কক থেকে কলকাতায় এসেছিলেন। তাঁরা মুগ্ধ। আরও পর্যটক আসবে। রাজ্য সরকারের পর্যটন ও শিল্প বিকাশে বিভিন্ন কর্মসূচির প্রশংসা করেন চীনা কনসাল জেনারেলও। বাংলার পাশাপাশি বাংলাদেশের পর্যটন বিকাশেও গুরুত্ব আরোপ করেন বাংলাদেশের প্লে মিউজিকের এমডি। সকলকে ধন্যবাদ জানান বিএনসিসিআই-এর ঋত্বিক দাশ।

বেঙ্গল ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির উদ্যোগে পশ্চিমবঙ্গের পর্যটন নিয়ে আলোচনাসভায় বক্তা বিএনসিসিআই–‌এর প্রেসিডেন্ট অর্পণ মিত্র। রয়েছেন রয়্যাল থাই–‌এর কনসাল জেনারেল সুইয়া শান্তিপিতকস, পর্যটন দপ্তরের যুগ্ম সচিব শান্তা প্রধান ও কলকাতায় নিযুক্ত চীনের কনসুলেট জেনারেল ঝা লিয়ু। বিএনসিসিআই–‌এ, বৃহস্পতিবার। ছবি:‌ কৌশিক সরকার

জনপ্রিয়

Back To Top