গৌতম চক্রবর্তী: কলেজপড়ুয়া বোনকে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হতে দেখে তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে দাদার ‌মৃত্যু। শুক্রবার সন্ধেয় সোনারপুরের বৈদ্যপাড়ার ঘটনা। ‌শনিবার মৃতের পরিবার সোনারপুর থানায় আসেন। তাঁদের অভিযোগ, বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থার গাফিলতির ফলেই এভাবে মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার বিচার চান তাঁরা। মৃতের বাবা মৃত্যুঞ্জয় নস্কর পুলিশের কাছে ঘটনার কথা জানিয়ে অভিযোগ করবেন বলে জানান।
মৃতের জ্যাঠা শম্ভু নস্কর বলেন, শুক্রবার সন্ধে সাড়ে ৬টা নাগাদ কাজ থেকে ফিরছিলেন শুভজিৎ নস্কর (২৭)‌। ফেরার পথে কলেজপড়ুয়া বোন সুমিতাও ছিলেন তাঁর সঙ্গে। সোনারপুর থেকে বৈদ্যপাড়ার রাস্তা ধরে তাঁরা ফিরছিলেন। প্রাকৃতিক দুর্যোগের জেরে ওই সময় ওই এলাকায় অন্ধকার ছিল। অনেক দিনের পুরনো বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে রাস্তায় পড়ে। তাতেই বোন বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। আর তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে দাদাও বিদ্যুতের তারে পা দেন। দু’‌জনেই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। জ্ঞান হারান শুভজিৎ। এলাকার মানুষ দ্রুত তাঁদের উদ্ধার করে খিরিশতলার একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে নিয়ে যান। সেখান থেকে পাঠানো হয় ই এম বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে। সেখানে গেলে শুভজিৎকে মৃত ঘোষণা করা হয়। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জনপ্রিয়

Back To Top