আজকালের প্রতিবেদন
পেটিএমের সূত্র ধরেই হাবড়ার জোড়া খুনে মূল অভিযুক্ত তন্ময় বর–কে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। শুক্রবার দুপুরে বারাসতে সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান বারাসতের পুলিশ সুপার অভিজিৎ ব্যানার্জি। তিনি বলেন, ‘পেটিএমের মাধ্যমে এক ব্যক্তির থেকে টাকা নেয় তন্ময়। মোবাইলের লোকেশন ট্র্যাক করে দত্তপুকুরের নীলগঞ্জ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় হাবড়ার জোড়া খুনে অভিযুক্ত তন্ময়কে।’‌ তদন্তের স্বার্থে ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ্যে বলতে চাননি পুলিশ সুপার। 
প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার গভীর রাতে হাবড়ার কুমড়ো অঞ্চলের টুনিঘাটায় বাড়িতে ঢুকে গুলি করে খুন করা হয় প্রতিবাদী দম্পতি রামকৃষ্ণ মণ্ডল (৫৮) ও লীলারানি মণ্ডল (৫১)–কে। ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিল মূল অভিযুক্ত প্রতিবেশী তন্ময় বর। পুলিশ সুপার বলেন, ‘প্রথমে সে কলকাতার চৌবাগায় যায়। তারপর দুর্গাপুরে। সেখান থেকে ব্যারাকপুরে আসে তন্ময়। এরই মধ্যে হাতের টাকা ফুরিয়ে যায় তার। তখনই পেটিএমের মাধ্যমে এক ব্যক্তির থেকে টাকা চায় সে। টাকা নিয়ে অন্য জায়গায় পালানোর ছক ছিল তন্ময়ের। কিন্তু তার আগেই টাকা চাওয়ার তথ্য পুলিশের হাতে চলে আসে। এরপর মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন খতিয়ে দেখে নীলগঞ্জ এলাকা থেকে ধরা হয় তাকে।’ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই হাবড়ার জোড়া খুনের কিনারা হল বলে জানান পুলিশ সুপার।  তিনি আরও জানান, মৃত ওই দম্পতির ভাইঝিকে অপহরণ করে তন্ময় বাংলাদেশেও পালিয়েছিল। ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে তারা আবার হাবড়ায় ফিরে আসে। এরপর তন্ময়ের বিরুদ্ধে হাবড়া থানায় অপহরণের অভিযোগ দায়ের হয়। পুলিশ সুপার বলেন, ‘‌খুনের তদন্ত একেবারে প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। তাই খুনের উদ্দেশ্য, খুনের ধরন সব কিছুই আমরা ধৃতকে জেরা করে জানার চেষ্টা চালাচ্ছি।’‌‌                                                       
                                                                   ছবি:‌ ভবতোষ চক্রবর্তী

জনপ্রিয়

Back To Top