আজকালের প্রতিবেদন
মশা মারতে কামান দাগার প্রবাদ পুরনো হয়েছে। এবার করোনা রুখতে কামান দাগার ব্যবস্থা করল কলকাতা পুরসভা। সেজন্য তারা কিনেছে মিস্ট ক্যানন। যা দিয়ে জীবাণুর দফারফা হবে, কাজ হবে দ্রুত, এমনই মনে করছেন কলকাতার মুখ্য প্রশাসক তথা পশ্চিমবঙ্গের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। 
কাজ শুরুও করে দিয়েছে পুরসভা। এসপ্ল্যানেডে এই আধুনিক যন্ত্রের উদ্বোধন করে ফিরহাদ হাকিম বলেন, শহর করোনা জীবাণুমুক্ত করা আরও সহজ হয়ে গেল। কঠিন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা দপ্তরের তৎপরতায় এই মেশিন কেনা হয়েছে। এই ‘‌কামান’‌ থেকে কুয়াশার আকারে বিস্তীর্ণ এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে রাসায়নিক মিশ্রিত জলকণা, যা স্যানিটাইজ করবে বড় বড় রাস্তা, বাড়ি। সরু রাস্তা, অলিগলিতে কাজ করবে স্প্রিংলার গাড়িগুলো। করোনা সংক্রমণের উৎস বলে চিহ্নিত চীনের হুবেই প্রদেশের রাস্তাকে জীবাণুমুক্ত করতে মিস্ট ক্যানন ব্যবহার করতে দেখা গিয়েছিল। দিল্লিতে দূষণ রুখতে এই যন্ত্র ব্যবহার করা হয়। এবার এল কলকাতায়। 
এতদিন শহরের পথঘাট জীবাণুমুক্ত করতে স্প্রিংলার গাড়ি, মিস্ট ব্লোয়ার ব্যবহার করা হচ্ছিল। কিন্তু এবার একসঙ্গে অনেকটা বেশি এলাকা জীবাণুমুক্ত করতে কেনা হয়েছে এই ‘‌কামান’‌। এতে মিনিটে ২০০ লিটার সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইড মিশ্রিত জল স্প্রে করা যাবে। কম সময়ে অনেকটা জায়গা জুড়ে করা যাবে স্যানিটাইজিংয়ের কাজ। এই মেশিনের মধ্যে আছে ১০ হাজার লিটার জল ধরার মতো ট্যাঙ্ক। এটি কিনতে খরচ পড়েছে প্রায় ২৭ লক্ষ টাকা। বহুতল বাড়িগুলোকেও এই যন্ত্রের সাহায্যে স্যানিটাইজ করা সম্ভব হবে। এদিন ধর্মতলা চত্বর জীবাণুমুক্ত করা হয় মিস্ট ক্যানন মেশিন দিয়ে।‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top