আজকালের প্রতিবেদন: ‌ভগিনী নিবেদিতার জন্ম সার্ধ শতবর্ষে মেয়েদের জন্য সাহসিকতার পুরস্কার চালু করছে রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার নবান্নে ভগিনী নিবেদিতার জন্ম সার্ধ শতবর্ষ উদ্‌যাপন কমিটি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সাধারণ সম্পাদক স্বামী সুবীরানন্দ মহারাজ। এই বছরে ৫ অক্টোবর ভগিনী নিবেদিতাকে নিয়ে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে রাজ্য সরকার। এই অনুষ্ঠানে মেয়েদের বিভিন্ন সাহসিকতামূলক কাজের জন্য এই পুরস্কার দেওয়া হবে। নারী সমাজের উন্নয়ন, নারী শিক্ষা, নারীর অধিকার নিয়ে ‌ভগিনী নিবেদিতা সারা জীবন কাজ করেছেন। তাই তাঁর নামে এই সাহসিকতার পুরস্কার চালু করছে রাজ্য সরকার। এছাড়াও  ভগিনী নিবেদিতার বিভিন্ন লেখা নিয়ে একটি সঙ্কলন তৈরি করবে রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশন। সেই সঙ্কলনটি রাজ্য সরকার স্কুল ও কলেজের ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে বিতরণ করবে। বিশেষ করে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের মধ্যে সঙ্কলনটি পড়ার জন্য দেওয়া হবে, যাতে ভগিনী নিবেদিতার চিন্তাধারায় তারাও উদ্বুদ্ধ হতে পারে। মহারাজ এদিন বলেন, স্বামী বিবেকানন্দের সার্ধ শতবর্ষ যেভাবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সরকার পালন করেছে, তা আর কোনও সরকার করেনি। ঠিক একইভাবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার ভগিনী নিবেদিতার জন্ম সার্ধ শতবর্ষও উদযাপন করছে। এই উদযাপন দিবস নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গেও কথা হয়েছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত কেন্দ্রের তরফে কোনও সাড়াই পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন মহারাজ। এদিন কমিটির বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জির উপস্থিতিতে সিদ্ধান্ত হয়েছে দার্জিলিঙে ভগিনী নিবেদিতার সমাধিস্থল সংস্কার এবং সৌন্দর্যায়ন করা হবে। আগেই ঠিক হয়েছিল দার্জিলিঙে ভগিনী নিবেদিতার বাড়িতে শিক্ষার প্রসারে উৎকর্ষ কেন্দ্র তৈরি করা হবে। এখানে রাজারহাটে পশ্চিমবঙ্গ সরকার ৫ একর জমি রামকৃষ্ণ মিশনকে দিয়েছে, ভগিনী নিবেদিতার নামে মানবিক উৎকর্ষ কেন্দ্র গড়ে তোলার জন্য।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top