অম্লানজ্যোতি ঘোষ, আলিপুরদুয়ার: ফের মুকুল রায়ের মন্তব্যের বিরোধিতায় দিলীপ ঘোষ। মুকুল যখন রাজ্যে এনআরসি হবে না বলে বুধবার কলকাতায় বিবৃতি দিয়েছেন, তখন বৃহস্পতিবার আলিপুরদুয়ারে দঁাড়িয়ে সেই মন্তব্যকেই কার্যত উড়িয়ে দিলেন বিজেপি–‌র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর দিলীপের এ হেন ভূমিকায় মুকুল রায় ও দিলীপ ঘোষের মধ্যে যে দূরত্ব ছিল, তা আরও প্রকট হল বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। এদিন ফালাকাটায় সাংবাদিক সম্মেলনে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‌এনআরসি তো সুপ্রিম কোর্ট চেয়েছে। আমি বলার কে? দেশের একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে আদালতের ওই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে আমি বাধ্য। আমিও আদালতের রায়কে সম্মান জানিয়ে এনআরসি–‌র সপক্ষে পথে নেমেছি। মুকুলবাবু কীসের পরিপ্রেক্ষিতে ওই মন্তব্য করেছেন, তার দায় আমার ও দলের নয়। আমাদের কাছে দলীয় নির্দেশ প্রাধান্য পায়।’‌
উল্লেখ্য, রাজ্যে এনআরসি–‌র উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে না বলে বুধবার কলকাতায় বিবৃতি দিয়েছিলেন মুকুল রায়। এদিন দিলীপ ঘোষ ঠিক তার পাল্টা বিবৃতি দেওয়ায় ফের বিজেপির অন্দরেই চর্চা শুরু হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে, একই দলের দুই নেতা রাজ্যের দুই প্রান্তে দু’‌রকম কথা বলায়। উল্লেখ্য, দিলীপ ঘোষ ফের বিজেপি–‌র রাজ্য সভাপতি হওয়ায় মুকুল রায়ের কৌশলী মন্তব্য ছিল, সভাপতি হলেও তাঁর হাতে চাবি নেই। এমন মন্তব্য নিয়ে কার্যত বিড়ম্বনায় পরে দল। ফালাকাটায় এদিন যেন আগের সেই দ্বন্দ্বই আরও একবার ফুটে উঠেছে। সূত্রের খবর, বিজেপির একটি অংশ এনআরসি চাইছেন না। শুধু আলিপুরদুয়ারে এনআরসি–র ধাক্কায় গত দু’‌মাসে অনেক কর্মী দল ছেড়েছেন। এই ইস্যুকে ধরে আদৌ কতটা মানুষের সমর্থন মিলবে, তা নিয়ে সন্দিহান দলের একাংশই।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top