আজকালের প্রতিবেদন, দিল্লি: ক্যা, এনআরসি এবং এনপিআরের বিরোধিতায় অনড় তৃণমূল। দলের তরফে কড়া বার্তা দেওয়া হল নরেন্দ্র মোদি সরকারকে। বয়কট করা হল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সংসদীয় স্ট্যান্ডিং কমিটির সফর কর্মসূচি। আসন্ন বাজেট অধিবেশনের আগে তৃণমূলের এই অসহযোগিতার বিশেষ রাজনৈতিক তাৎপর্য রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন, এনপিআর এবং এনআরসি— বিতর্কিত এই তিনটি বিষয়ই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের অধীনস্থ। মন্ত্রকের সংসদীয় স্ট্যান্ডিং কমিটিতে লোকসভা ও রাজ্যসভা মিলিয়ে মোট সদস্য সংখ্যা ৩১। তৃণমূলের তরফে লোকসভা থেকে কমিটিতে রয়েছেন কাকলি ঘোষদস্তিদার, রাজ্যসভা থেকে মণীশ গুপ্ত। কমিটির বৈঠক ফেলা হয়েছে উত্তর–‌‌পূর্বে। সেইসঙ্গে অসম ও মেঘালয়ে ৫ দিনের সফর। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল সদস্যদের। কিন্তু, সেই আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করে কর্মসূচি বয়কট করেছেন তৃণমূলের দুই সাংসদ। চিঠি লিখে তা জানিয়ে দিয়েছেন স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান আনন্দ শর্মাকে।
কাকলি ঘোষদস্তিদার জানিয়েছেন, ‘‌সিএএ, এনআরসি এবং এনপিআর আমদানি করে আম জনতার জীবন বিপর্যস্ত করে তুলেছে মোদি সরকার। সবটাই হচ্ছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর তত্ত্বাবধানে। তাই দলনেত্রীর নির্দেশে আমরা বৈঠক ও সফর বয়কট করেছি। নীতিগত কারণেই বয়কট।’‌ সফরে যোগ দেননি কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরি ও প্রদীপ ভট্টাচার্যও। ৩১ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে সংসদের বাজেট অধিবেশন। স্পষ্ট সঙ্কেত, ক্যা, এনআরসি এবং এনপিআর ঝড় তুলতে যাচ্ছে সংসদে। 

জনপ্রিয়

Back To Top