আজকালের প্রতিবেদন: পশ্চিমি ঝঞ্ঝায় ফের মেঘের আনাগোনার ইঙ্গিত। শুক্রবার দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গেরও কোথাও কোথাও ঝরতে পারে বিক্ষিপ্ত হালকা বৃষ্টি। তার আগে বুধ ও বৃহস্পতিবার দক্ষিণবঙ্গে দুপুরের দিকে রোদ থাকবে একটু চড়া। উত্তরবঙ্গে মাঝেমধ্যেই বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা। মঙ্গলবার পূর্বাভাসে এমনটাই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। চলতি মাসের শুরুর দিকটা কেটেছে একটু গরমে গরমেই। তাপমাত্রাও বেশ চড়ে গিয়েছিল। সোমবারের হালকা ঝিরঝিরে বৃষ্টিতে কিছুটা কমেছে। তবে বিকেল, সন্ধের পর হাওয়ার আর্দ্রতা কমে যাওয়া, সেটা আগের মতোই রয়েছে। ফাল্গুন প্রায় শেষ। কিন্তু হাওয়ায় এখনও শীতের রুক্ষভাব কেন?‌ আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, হাওয়া বদলের সময় টানা বয়ে চলেছে পশ্চিমি ঝঞ্ঝা। যাওয়ার পথে সেই হাওয়া শুষে নিয়ে যাচ্ছে দক্ষিণবঙ্গের হাওয়ায় থাকা জলীয় বাষ্প। তাতে রুক্ষভাব থেকেই যাচ্ছে। আর এই কারণেই সোমবার ওডিশার ওপর দানা বাঁধা ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবকে জমাট বাঁধতে দিল না। আবার মাঝেমধ্যেই পশ্চিমি ঝঞ্ঝা বয়ে নিয়ে আসছে টুকরো টুকরো মেঘ। তা থেকে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হচ্ছে। মঙ্গলবারই ওই ঘূর্ণাবর্তটি বেশ দুর্বল হয়ে গেছে। তবে বিহার থেকে পশ্চিমবঙ্গ, বাংলাদেশ হয়ে মণিপুর পর্যন্ত একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা দানা বেঁধেছে। তাতে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে আগামী কয়েকদিন বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। কলকাতায় এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫.‌৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মাঝেমধ্যে পশ্চিমি ঝঞ্ঝার কারণে যে ‘‌জেট’‌ হাওয়া বইছে, তাতে মেঘ ভেসে এসে তাপ সাময়িক কমিয়ে দিচ্ছে। কিন্তু হাওয়ার গতি কমলেই ফের বাড়ছে দিনের বেলার তাপ। আগামী কয়েকদিন দক্ষিণবঙ্গের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা স্বাভাবিকের আশপাশে কিংবা ১ থেকে ২ ‌ডিগ্রি বেশি থাকতে পারে। তবে রাতের তাপমাত্রা একটু কম থাকবে। এই কারণে দিনের বেলায় গরমের অনুভূতি হবে একটু বেশি। এরকমটা চলবে আগামী কয়েকদিন। তারপর ধীরে ধীরে হাওয়ায় আর্দ্রতা বাড়লে বাড়বে ঘাম আর অস্বস্তি।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top