আজকাল ওয়েবডেস্ক: ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে থাকবে গ্লাভস। থাকবে স্যানিটাইজার এবং মাস্কও। করোনা পরিস্থিতিতে সতর্কতা হিসেবে প্রত্যেকটি জেলায় এই নির্দেশ পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন। রাজ্য প্রশাসনের একটি সূত্রে জানা গেছে এই খবর। ইতিমধ্যেই প্রতিটি জেলার জেলার জেলাশাসকের কাছে এবিষয়ে নির্দেশ পাঠানো হয়েছে বলে ওই সূত্রটি জানিয়েছে। 
এবিষয়ে রাজ্যের এক জেলাশাসক বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে আমরা কোনওরকম ঝুঁকি নিতে পারি না। ফলে সতর্কতা হিসেবে সব বুথেই রাখা থাকবে গ্লাভস বা অন্যান্য মেডিক্যাল কিটস। কারণ উপসর্গ নেই এরকম কোনও ভোটার ইভিএম ব্যবহার করার পর পরবর্তী ভোটারের একটা সংক্রমণের সম্ভাবনা রয়ে যায়। আর শুধু ভোটারই নয়, সংক্রমিত হতে পারেন ভোটকর্মীরাও। ফলে ঝুঁকি এড়াতে সব ধরনের বন্দোবস্ত রাখা হচ্ছে। কেউ যদি বাড়ি থেকে গ্লাভস বা মাস্ক না নিয়ে আসেন তবে তাঁকে ভোটগ্রহণ কেন্দ্র থেকেই সেটি সরবরাহ করা হবে। ভোটদানের পর তিনি সেটি নিয়ে যেতেও পারেন বা ইচ্ছা করলে নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলে দিতে পারেন। 
শনিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে উত্তর ২৪ পরগণার জেলা শাসক সুমিত গুপ্তা জেলার ভোটকেন্দ্রে গ্লাভসের ব্যবহার সম্পর্কে জানিয়ে দিয়েছেন। তবে তিনি বলেন, বিষয়টি অপশনাল বা ভোটারদের ইচ্ছার ওপর নির্ভর করছে। 
একদিকে যেমন ভোটারদের জন্য সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে তেমনি ভোটকর্মীদেরও সতর্ক থাকতে হবে। রাজ্য প্রশাসনের ওই সূত্রটি জানায়, বিষয়টি এমন নয় যে শুধু ভোটারদের সতর্ক থাকলেই হবে। ভোটকর্মীরা ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের ভেতরে ও বাইরেও করোনা সতর্কতা মেনে চলবেন। তাঁদেরকেও পরতে হবে মাস্ক। রাখতে হবে স্যানিটাইজার বা গ্লাভস। ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে পারস্পরিক দূরত্ব মেনে চলাটাও বাধ্যতামূলক। এই বিষয়গুলি সঠিক মানা হচ্ছে কি না তা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নজরদারি করা হবে।

জনপ্রিয়

Back To Top